ইন্দোনেশিয়ার বাজারে এসে গেছে ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩

যে স্পোর্টস বাইকটির জন্য বাইকপ্রেমীরা দীর্ঘদিন ধরে আমরা অপেক্ষায় ছিলাম, সেই অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ইয়ামাহা ইন্দোনেশিয়ায় ইয়ামাহা আর১৫ ২০১৭ নামে ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ বাজারে ছেড়েছে। ইয়ামাহা আর১৫ ২০১৭-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইয়ামাহা’র মটোজিপি রাইডার মেভ্রিক ভিনালেস এবং ৭ বারের মটোজিপি ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন ভ্যালেন্টিনো রোজি। নতুন এই বাইকটি পুরনো আর১৫ ভি২ এরই উন্নততর সংস্করণ যেটায় বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। আর ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ বা আর১৫ ২০১৭ কবে নাগাদ বাংলাদেশে আসবে কিংবা আদৌ আসবে কি না, আর আসলেও এর দাম কতো হবে এ ব্যাপারে আমাদের কাছে কোনো তথ্যই নেই। এখন অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন, ইন্দোনেশিয়ায় বাজারজাত শুরু করা কোনো বাইকের…

Review Overview

User Rating: 4.8 ( 1 votes)

যে স্পোর্টস বাইকটির জন্য বাইকপ্রেমীরা দীর্ঘদিন ধরে আমরা অপেক্ষায় ছিলাম, সেই অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ইয়ামাহা ইন্দোনেশিয়ায় ইয়ামাহা আর১৫ ২০১৭ নামে ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ বাজারে ছেড়েছে। ইয়ামাহা আর১৫ ২০১৭-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইয়ামাহা’র মটোজিপি রাইডার মেভ্রিক ভিনালেস এবং ৭ বারের মটোজিপি ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন ভ্যালেন্টিনো রোজি। নতুন এই বাইকটি পুরনো আর১৫ ভি২ এরই উন্নততর সংস্করণ যেটায় বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। আর ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ বা আর১৫ ২০১৭ কবে নাগাদ বাংলাদেশে আসবে কিংবা আদৌ আসবে কি না, আর আসলেও এর দাম কতো হবে এ ব্যাপারে আমাদের কাছে কোনো তথ্যই নেই।

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩এখন অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন, ইন্দোনেশিয়ায় বাজারজাত শুরু করা কোনো বাইকের কারণে বাংলাদেশের মোটরসাইকেল বাজারের ওপর কেমন প্রভাব পড়তে পারে বা পড়বে কি না! এখান কিছু কারণ উল্লেখ করছি :

  • গত বছর আমরা বেশ কিছু বাইক বাংলাদেশের বাজারে দেখেছি যেগুলো ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা হয়েছিলো। আর এগুলো এদেশে বেশ জনপ্রিয়তাও পেয়েছে। (যেমন : ইয়ামাহা জেবর, ভিক্সন এবং হোন্ডা সিবিআর১৫০আর )
  • ইতোমধ্যেই অনেক বাইক আমদানিকারক সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ায় বাজারজাত শুরু হওয়া সুজুকির স্পোর্টস বাইকের অগ্রীম বুকিং নেওয়া শুরু করেছে।
  • ইতিহাস বলছে, যখনই কোনো আর সিরিজের বাইক ইন্দোনেশিয়ায় বাজারজাত শুরু হয়েছে, সেসময়েই তা ভারতেও ছাড়া হয়েছে। সে হিসেবে আমরাও যেকোনো দিন বাংলাদেশের বাজারে এসিআই মটরসকে (বাংলাদেশে ইয়ামাহার পরিবেশক) ওয়াইজেডএফ-আর১৫ ২০১৭ বাজারজাত করতে দেখতে পারি।
  • সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, বাংলাদেশী বাইকারদের ইয়ামাহা’র প্রতি একটি বিশেষ দুর্বলতা রয়েছে। সেদিক থেকে বিবেচনা করে কোনো আমদানিকারক যদি ইন্দোনেশিয়া থেকে বাইকটি আমদানি করাও শুরু করে তবুও বিস্মিত হওয়ার কিছু নেই।

ইয়ামাহা আর১৫ এর লেটেস্টে ভার্সনউদ্বোধন অনুষ্ঠানে রোজি নতুন ইয়ামাহা আর১৫ ২০১৭ সম্পর্কে যা বলেন, তা হলো :

  • নতুন ১৫৫ সিসি ওয়াটার কুলড ইঞ্জিন (আমাদের জন্য অধিক সুবিধাজনক)
  • বাইকটিতে ভেরিয়েবল ভাল্ব অ্যাকচুয়েশন এর মতো নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে।
  • আরো অধিক শক্তি উৎপাদনে সক্ষম। নতুন ইয়ামাহা আর১৫ ২০১৭ সর্বোচ্চ ১৯ বিএইচপি @ ১০,০০০ আরপিএম ও ১৪.৭ নিউটন মিটার টর্ক উৎপাদন করে।
  • নতুন ডিজাই্ন
  • নতুন এলইডি হেডলাইট
  • ইঞ্জিন ব্রেকিং আরো কর্মদক্ষ করে তোলার জন্য স্লপারি ক্লাচ রয়েছে
  • র‌্যাম এয়ার ইনটেক
  • সামনে ৩১ মিমি ইনার টিউবসহ আপসাইড ডাউন সাসপেনশন
  • সম্পূর্ণ ডিজিটাল স্পিডোমিটার
  • নতুন বাইকটির ওয়েট ডিস্ট্রিবিউশন ৫০ : ৫০
  • পিছনের টায়ার ১৪০/৭০-১৭ ও সামনের টায়ার ১০০/৮০-১৭ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ (২)

বাংলাদেশে ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর মূল্য

মূলত এইগুলোই হলো নতুন বাইকটির কয়েকটি ফিচার। আর বুঝতে পারছি ইয়ামাহা বেশ পরিশ্রম করে নতুন একটি বাইক আমাদের সামনে এনেছে। যেটার ইঞ্জিন, ডিজাইন, প্রযুক্তি সবই নতুন। তবে এটাতেও সেই পুরনো ডেল্টা ফ্রেমই ব্যবহার করা হয়েছে, যা এখনো বাইকারদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়।ইয়ামাহা ওয়াইজেডএফ-আর১৫ ২০১৭

দিনে দিনে বাংলাদেশের বাইকাররা উচ্চ প্রযুক্তির স্পোর্টস বাইকের প্রতি মনোযোগী হয়ে উঠেছে। গত বছরই এদেশের বাজারে চলে এসেছে হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ ও সুজুকি জিএক্সএস-আর১৫০ আগামী মার্চ-এপ্রিলের মধ্যেই আমদানিকারকদের মাধ্যমে বাংলাদেশে চলে আসছে। ফলে বাংলাদেশের বাইকপ্রেমীরা ইন্দোনেশিয়ায় বাজারজাত শুরু হওয়া ইয়ামাহা ওয়াইজেডএফ-আর১৫ ২০১৭ এর জন্য বেশি দিন অপেক্ষা করতে পারবে না। ভবিষ্যতে নতুন ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর ব্যাপারে নতুন তথ্য পাওয়া মাত্রই আমরা আপনাদের কাছে তা ‍তুলে ধরবো।

নতুন ইয়মাহা আর১৫ এমওয়াই  ২০১৭ এর স্পেসিফিকেশন

দৈর্ঘ্য  x প্রস্থ x উচ্চতা : ১৯৯০ x ৭২৫ x ১১৩৫ মিমি
সিটের উচ্চতা : ৮১৫ মিমি
হুইলবেজ: ১৩২৫ মিমি
জ্বালানিসহ ওজন : ১৩৭ কেজি
ইঞ্জিন টাইপ : লিকুইড কুলড ৪-স্ট্রোক, এসওএইচসি
সিলিন্ডার : সিঙ্গেল সিলিন্ডার
সিলিন্ডারের আয়তন : ১৫৫.১ সিসি
বোর x স্ট্রোক : ৫৮ x ৫৮.৭ মিমি
কম্প্রেশন রেশিও : ১১.৬:১
সর্বোচ্চ ক্ষমতা : ১৪.২ কিলোওয়াট/১০০০০ আরপিএম
সর্বোচ্চ টর্ক : ১৪.৭ নিউটন মিটার / ৮৫০০ আরপিএম
স্টার্টিং : ইলেকট্রিক
জ্বালানি ধারণ ক্ষমতা : ১১ লিটার
জ্বালানি সরবরাহ : ফুয়েল ইঞ্জেনশন
ক্লাচ : ওয়েট টাইপ মাল্টি-প্লেট ক্লাচ
টায়ার সাইজ (সামনে / পিছনে):
১০০/৮০-১৭/ সি৫২পি (সামনে)
১৪০/৭০-১৭/ সি৬৬এস (পিছনে)

আরো ছবি

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর দামইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ উদ্বোধন

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর ফিচার

কালো ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর সর্বোচ্চ গতি

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর টেইল লাইট

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর ফুল স্পেসিফিকেশন

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর ফিচারগুলো

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর সব কালার

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর বিস্তারিত

ইন্দোনেশিয়ায় ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩

বাংলাদেশে ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর দাম

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ বনাম ভি২

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর গতি

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর স্পেসিফিকেশন

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর মূল্য

ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩ এর দাম (2)

আর্টিকেলটি পূর্বে ইংরেজিতে প্রকাশ করা হয়েছিলো

About মাহামুদ সেতু

হ্যালো রাইডারস, আমি মাহামুদ সেতু। থাকি রাজশাহীতে, পড়াশোনাও রাবি’তে। যদিও আমার নিজস্ব কোনো বাইক নেই, তারপরও আমি কিন্তু বাইকের ব্যাপারে পাগল। এক্ষেত্রে আমাকে ‘চন্দ্রাহত’ও বলতে পারেন, মানে ওই দূর থেকে চাঁদের (আমার ক্ষেত্রে বাইক) প্রেমে পাগল হয় যারা, তারা আর কি। যাই হোক, মূল কথায় আসি। গত দুই বছর ধরেই আমি বাইকবিডি.কমের নিয়মিত পাঠক। এখান থেকেই আমি বাইক সম্পর্কে আমার জ্ঞানতৃষ্ণা নিবারণ করেছি। ব্লগের সবগুলো লেখাই একাধিকবার পড়েছি। এখানেই জানতে পারলাম বাইক মোডিফিকেশন সম্পর্কে। শেষমেশ এখন তো সিদ্ধান্তই নিয়ে ফেলেছি, বাইক নিয়েই কাজ করবো। মানে, বাইক মোডিফিকেশনটাকেই পেশা হিসেবে নিতে চাচ্ছি। জানি কাজটা কঠিন, তারপরও আমি আশাবদী। আমার জন্য দোয়া করবেন। অবশ্য বাইক মোডিফিকেশন নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী হওয়ার পিছনে আরেকটি কারণ রয়েছে। দেশে এতো এতো সুন্দর, দ্রুতগতির ও ভালো বাইক (বাংলাদেশে আইনত যার সর্বোচ্চ সীমা ১৫০সিসি) আছে, অথচ আমার পছন্দ হোন্ডা সিজি ১২৫। আমার খুবই ইচ্ছা এই ক্ল্যাসিক বাইকটি কিনে নিজের হাতে মোডিফিকেশন করার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Sign up to our newsletter!