এ্যালয় হুইল সম্পর্কে বিস্তারিত এবং এর যত্ন

বর্তমানে বাইক মানেই এ্যালয় হুইল হয়ে দাড়িয়েছে । যে বাইকগুলো বর্তমানে বিভিন্ন কোম্পানী তৈরী করছে  তার প্রায় ৯৯% ই এ্যালয় হুইলের । কিন্তু , এই হুইল সম্পর্কে আমরা কতটুকুই বা জানি ? তো চলুন  , আজ এই এ্যালয় হুইল সম্পর্কে আমরা একটু জানতে চেষ্ট করি এবং এর যত্ন কভিাবে করতে হয় সেটাও বুঝি ।

এ্যলয় হুইল রিমগুলো সাধারণত অ্যালুমিনিয়াম , কার্বন বা অন্যান্য সংকর ধাতুর সংমিশ্রণে তৈরী হয় । আগে এটা ম্যাগনেশিয়ামের সংকর দ্বার তৈরী হত । কিন্তু , ম্যাগনেশিয়াম –এ্যালয় রিমগুলোতে আগুন ধরার সম্ভাবনা ছিল । তাই , ম্যাগনেশিয়াম এ্যালয়য় রিমগুলো পরবর্তীতে ব্যান করা হয় । আমি বাংলাদেশে বা ইন্ডিয়ায় তৈরী এ্যলয় রিমগুলোর কথা জানি না , কিন্তু বিদেশে এই এ্যলয় হুইল রিমগুলো তৈরী হয় অ্যালুমিনিয়াম , কার্বন বা অন্যান্য সংকর ধাতুর সংমিশ্রণে ।

বর্তমানে বেশীরভাগ বাইকের রিম হিসেবে এ্যালয় রিম ইউজ করা হচ্ছে । এর কম ওজন , এ্যাকুরেসি ও ইফিসিয়েনির জন্য এটা বর্তমানে সবস্থানে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে । এ্যালয় হুইলগুলো টিউবলেস টায়ারগুলোর জন্য খুবই ভাল এবং পারফেক্ট রিমের উপর টায়ারের সিটিং পজিশনের জন্য । টায়ারটি রিমের সাথে এ্যাকুরেটলি এবং পারফেক্টলি ফিট হয় , এবং এটা টায়ার এবং রিমের জন্য খুবই জরুরী । যদি এটা ভালভাবে ফিট না হয় তাহলে রাইডিং এর সময় ভাইব্রেটিং বা জার্কিং এর সম্ভাবনা থাকে ।

যদি কোন সময় আপনার টিউবলেস টায়ার পাংচার হয়ে যায় তাহলে টায়ারটি রিমের থেকে খুলে ফেলবেন না । কারণ এটা আপনার রিমের ক্ষতি করতে পারে । আপনার কোন সময়ই এ্যলয় হুইলের সাথে টিউবসহ টায়ার লাগাবেন না । কারণ , আপনার টিউব যদি পাংচার হয়ে যায় তাহলে আপনার প্রতিবার এটা মেরামত করার জন্য প্রতিবারই এটা খুলতে হবে , এবং এতে করে আপনার রিমটি প্রতিবারই ক্ষতিগ্রস্থ হবে । এ্যলয় হুইলগুলো খুবই সফট এবং হালকা ধাতু দ্বারা তৈরী ।যেমন , এ্যালুমিনিয়াম বা কার্বন ইত্যাদি । আমরা জানি এ্যালুমিনিয়াম বা কার্বন অত্যান্ত হালকা ধাতু । তাই , রোডে যদি আপনার টায়ার পাংচার হয়ে যায় তাহলে আপনি যদি সাধারণ ম্যেকানিক্যাল ওয়ার্কশপে নিয়ে যান তাহলে তারা এটা সারাই করতে হয়ত স্ক্রু ড্রাইভার বা এই ধরণের কিছু ভারী যন্ত্রপাতি ইউজ করবে যেটা আপনার রিমের মারাত্মক ক্ষতি করবে । তাই , আপনি সবসময়ই টায়ার রিমুভিং টুলস ইউজ করার চেষ্ট করুন পাংচার এর সময় ।

Pulled-Stem-1

Alloy Wheels Repair

এ্যালয় হুইল রিমের ক্ষেত্রে টায়ার ঠিক করার র্বাপারটা অনেক সহজ এবং সাধারণ স্পোক রিমের থেকে অনেক ভাল । কারণ , আপনি স্পোক রিমে টিউবলেস টায়ার ইউজ করতে পারবেন না কারণ , স্পোকের ফুটোগুলো আপনার টায়ারের সব বাতাস বাইরে বের করে দেবে ।

এ্যালয় হুইল সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ন টিপস :

  1. সবসময় মনে রাখবেন . এ্যালয় রিম সবসময়ই এক্সট্রা যত্নে রাখতে হবে ।
  2. আপনারর টায়ারের এয়ার প্রেশার সবসময় কোম্পানী রিকমেন্ডেড প্রেশার অনুযায়ী রাখতে চেষ্ট করুন । না হলে এটা রিমের পক্ষে ক্ষতিকর হতে পারে ।
  • সবসময় টায়ার চেঞ্জের সময় সঠিক টায়ার রিমুভিং টুলস ইউজ করার চেষ্টা করুন । অন্য কোন যন্ত্রপাতি দিয়ে টায়ার না খোলাটাই ভাল ।
  1. বাইকগুলো ক্ষেত্রে এ্যালয় রিমের সবসময়ই ডাইনামিক ব্যালেন্সিং দরকার। সেটা ঠিক রাখুন ।
  2. টায়ার রিমুভ করার জন্য কখনই হাতুরি টাইপের জিনিস ইউজ করবেন না । এটা রিমের মারাত্ম ক্ষতি করতে পারে ।
  3. কখনওই রিমের সাথে কম ব্যাসের টায়ার ইউজ করবেন না । এতে এ্য্যলয় রিমের ক্ষতি হয় ।
  • পাংচারের সময় টায়ারটি রিমের থেকে খোলার চেষ্টা করবেন না ।
  • সবসময়ই ব্রান্ডের এ্যালঙ রিম ইউজ করার চেষ্টা করান । কারণ , লোকালি তৈরী এ্যলয় রিমগুলোতে বিভিন্ন সংকর ধাতুর সঠিক অনুপাতের মিশ্রণ থাকে না যেটা আপনার রিমের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে । এমনকি রাইডিং এর সময় রিম ভেঙে গিয়ে দূর্ঘটনা পর্যন্ত ঘটতে পারে ।
  1. ম্যাগনেশিয়াম এ্যালয় রিম ইউজ করবেন না । কারণ এটি একটি দাহ্য বস্তু ।
  2. অফ রোডে বাইক রাইডিং করা বন্ধ করুন । কারণ এটা করলে আপনার রিম দ্রুত অকেজো হয়ে যেতে পারে ।
  3. যখন আপনি এ্যালয় হুইলের বাইক কিনবেন তখন সবসময়ই ডিস্ক ব্রেকের বাইক নিতে চেষ্টা করুন । কারণ , ড্রাম ব্রেকে ড্রামটি নিজেই রিমের একটা অংশ । ফলে ড্রামটি নষ্ট হয়ে গেলে আপনার ফুল এ্যালয় হুইলটাই বদলাতে হতে পারে ।
  • কথনওই এ্যালয় হুইল নিজে নিজে মেরামত করার ঝুকি নিবেন না । কারণ বিষয়টা অনেক সেনসেটিভ ।

টিউবলেস টায়ার পাংচার রিমুভিং কিট বাজারে এ্যভেইল এভেল পাওয়া যায় । সেটা আপনার সাথে রাখুন সবসময় । আর এ্যলয় হুইল রিপেয়ার করতে পারে এমন বিশ্বস্থ স্থান বাংলাদেশে আমার খুব একটা জানা নেই । তাই , রিম ফুললি ড্যামেজ হলে নতুন একটা নিতে চেষ্ট করুন । কারণ , ভুলভাল মেরামত করলে এটা আপনার লাইফ রিস্ক হয়ে দাড়াতে পারে ।

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক