রানার মোটরবাইকের নতুন অফার

কেন সুপারমটো গুলো আজও সবথেকে প্রিমিয়াম কোয়ালিটির বাইক হিসেবে ধরা হয়?

আপনারা নিশ্চই সুপারমোটো টাইপের বাইকগুলোর নাম শুনে ও দেখে থাকবেন । এগুলো হল বিশ্বের সবথেকে প্রিমিয়াম ক্লাসের একটা বাইক । ১৯৭৯ সালে একটা রেসিং এর আয়োজন করা হয় যেটার কথা হয়ত আপনারা অনেকেই শুনেন নি । যেটার নাম ছিল “Superbikers” । এই রেসের মূল লক্ষ্য ছিল সব বাইকারদের ভেতর থেকে সবথেকে ভাল ও অল রাউন্ডার বাইকারদের খুজে বের করা । এটা হয়েছিল সব রকমের রেসিং কে একসাথে কম্বাইন করে । এর ভেতর ছিল রোড রেসিং , মটোক্রস এবং ফ্লাট ট্রাক । এবং এই রেসে জেতার একটা মাত্র উপায় ছিল সেটা হল উপরের সব ধরণের রেসিং এ সমানভাবে দক্ষতা অর্জন করা…

Review Overview

User Rating: 4.93 ( 3 votes)

আপনারা নিশ্চই সুপারমোটো টাইপের বাইকগুলোর নাম শুনে ও দেখে থাকবেন । এগুলো হল বিশ্বের সবথেকে প্রিমিয়াম ক্লাসের একটা বাইক । ১৯৭৯ সালে একটা রেসিং এর আয়োজন করা হয় যেটার কথা হয়ত আপনারা অনেকেই শুনেন নি । যেটার নাম ছিল “Superbikers” । এই রেসের মূল লক্ষ্য ছিল সব বাইকারদের ভেতর থেকে সবথেকে ভাল ও অল রাউন্ডার বাইকারদের খুজে বের করা । এটা হয়েছিল সব রকমের রেসিং কে একসাথে কম্বাইন করে । এর ভেতর ছিল রোড রেসিং , মটোক্রস এবং ফ্লাট ট্রাক । এবং এই রেসে জেতার একটা মাত্র উপায় ছিল সেটা হল উপরের সব ধরণের রেসিং এ সমানভাবে দক্ষতা অর্জন করা । এই রেসিং এ যে রাইডাররা ট্রফি অর্জন করে এবং যে বাইকগুলো তাদের ছিল এগুলোই পরবর্তীতে সুপারমটো হিসেবে পরিচিত ।

00164a7f6a18720af3a4a7b194a4cec1

এই সুপারমটো সম্পর্কে অনলাইনে সার্চ দিলেই আপনার ডিটেইলস পেয়ে যাবেন । আর সুপারমটো বাইকগুলো নিয়েই আমাদের আজকের লেখা । সুপারমটো বাইক কেন এবং কীজন্য সব বাইকের বস হিসেবে পরিচিত তা আজ আপনারা এই পোষ্টটার শেষে বুঝতে পারবেন ।

সব বাইকের বস বা কম্বিনেশন

সুপারমোটটো পৃথিবীর ইতিহাসের সব বাইকগুলোর তুলনায় আজ এগিয় রয়েছে সব দিক থেকে । এটা নিয়ে আপনি অফ রোড রাইডিং , জাম্পিং, স্ট্যান্ট , ক্রাশ , রেস সব ধরণের কাজই করতে পারবেন । এটা এমন একটা বাইক যেটা সবকিছুই সমানভাবে করতে পারে । মটোক্রস বাইকগুলো জাম্পিং এর ক্ষেত্রে ভাল , সুপারস্পোর্টস গুলো কর্নারিং এ ভাল আবার ডুয়াল স্পোর্টস গুলো এডভেঞ্চার এর জন্য ভাল । আর এই সবগুলো কাজই আপনি করতে পারবেন সুপারমটো তে ।

supermoto_clutch_control

বাইক রাইডিং এর মজা

সুপারমটো বাইকগুলো রাইড করলে আপনি আপনার ট্যালেন্ট এর সবোর্চ্চ ইউজ করতে পারবেন । এই বাইকগুলো আপনাকে অসাধারণ হ্যান্ডেলিং এর সুবিধা দিয়ে থাকে । আপনি এটা নিয়ে যেকোন রোডে কর্নারিং বা ড্রিফটিং এ অন্যরকম মজা পাবেন । আর যেকোন খারাপ পরিস্থিতিতে সুপারমটো নিয়ে আপনি যে কনফিডেন্স এর সাথে রাইড করতে পারবেন অন্য কোন বাইক নিয়ে সেটা সম্ভব না ।

যেকোন কন্ডিশনের রোডের বা অফরোডের বাইক

একটা সুপারমটো আপনাকে একটা ডার্ট বাইকের মত সুপার সাসপেনশন সিস্টেম সহ যেকোন রোডে আপনাকে সবোর্চ্চ আরামদায়ক রাইডিং এর নিশ্চয়তা দেয় । এগুলো দেখতে একটু অন্যরকম বা কম স্টাইলিশ হলেও রোডে রাইডিং এর সময় এটা আপনাকে চমকে দিবেই । বাইকগুলো কম ওয়েট এবং বড় মাপের ডিস্ক আপনাকে অনেক কম দুরত্বের ভেতর আপনার বাইককে থামতে সাহায্য করে । শর্ট গিয়ারিং এবং ট্রাক্টররের মত টর্ক আপনার বাইক অত্যান্ত দ্রুত এক্সেলেরেট করে । ফলে যেকোন রেসিং এ কম সময়ে দ্রুত স্পীড আপ করা আবার কোন বিপদের মূহুর্তে খুব দ্রুত থামার জন্য সুপার মোটো এর কোন জুড়ি নেই ।

এই বাইকগুলোর দ্রুততা , শর্ট গিয়ারিং , চকন বডি এবং সব ধরণের রোডে চলার অপরিসীম ক্ষমতা বাইকগুলোকে একটা অনন্য উচচতায় নিয়ে গেছে । আপনি যেকোন ট্রাফিক জ্যামের ভেতর ও একটা সুপারমটো নিয়ে রিল্যাক্সে রাইড করতে পারবেন । সিটির ভেতর রাইডিং এর জন্য একটা সুপারমটো জাস্ট আপনার কাছে মাজাদার বলেই মনে হবে ।

ক্রাশ যেখানে কোন বিষয়ই না

আপনি যেকোন বাইক রাইডিং এর সময় এক্সিডেন্ট করতে পারেন । কিন্তু একটা সুপারমটো এর কাছে এটা কোন বিষয়ই না । সুপারমটো বাইকগুলো বডি পার্টসগুলো এতই মজবুত যে বাইক নিয়ে আপনি একাধিকবার এক্সিডেন্ট করলেও আপনি তো সেভ থাকবেনই উপরন্তু আপনার বাইকের পেছনে খরচ তেমন একটা হবে না বললেও চলে ।

super,oto 1

যেকোন রাইডারই যেকোন মূল্যে কোন প্রকার এক্সিডেন্টের সম্মুখীন হতে চান না । কারণ , এক্সিডেন্টের ফলে নিজের আঘাত পাবার সম্ভাবনা তো থেকেই যায় , তারপর বাইকের যেকোন পার্টস এর সামান্য ক্ষয়ক্ষতি আপনার পকেটের বহু টাকা বের করে নিতে পারে । অনেক সময় এমন ঘটনা ঘটে যে আপনার স্কিল ডেভলপ এর জন্য আপনাকে সবথেকে কঠিন রাস্তাটাই বেছে নিতে হচ্ছে । সুপারমটো আপনাকে এই ধরণের এক্সপেরিয়েন্স এনে দিবে । আপনার রাইডিং স্কিল ডেভলপ করতে একটা সুপারমটোই আপনার জন্য যথেষ্ঠ । আর একবার যদি আপনি রাইডিং স্কিল ডেভলপ করতে পারেন তাহলে আপনি পৃথিবীর যেকোন বাইক নিয়েই রক করতে পারবেন । বাইক রাইডিং এর এমন কিছু বিষয় আছে যেগুলো শেখানো যায় না , এগুলে নিজে থেকেই ফিল করে শিখতে হয় । আর আপনার একটা সুপার মটো থাকলে আপনি এই রেয়োর জিনিসগুলো ফিল করতে বাধ্য ।

আপনি কী এ্যাডভেঞ্চার পছন্দ করেন

আপনার একটা সুপারমটো থাকার সবথেকে বড় সুবিধা হল এটা আপনাকে শিখতে বাধ্য করবে । এটা্ রাইড করলে আপনার বাইক রাইডিং এর সুক্ষাতিসুক্ষ জিনিসগুলো শিখতে ইচ্ছ করবে এবং আপনি এগুলো ফিল করবেন । সুপারমটো আপনাকে বাইক রাইডিং এর এমন একটা জগৎ এ নিয়ে যাবে যেটা আপনি আগে কখনও ফিল করেননি । প্রচন্ড বাজে রোডে হাই স্পীডে টার্নিং বা কর্নারিং আপনাকে একটা অন্যরকম অভিজ্ঞতা এনে দিবে যেটা অন্য কোন বাইক পারবে না । একটা সুপারমটো এর সবথেকে বড় গুণ হল এটা যেকোন রাইডারের ভেতর অপরিসীম সাহস ও কনফিযেন্স এনে দেয় যার ফলে আপনি রাইডিং এর কলাকৌশলগুলো শিখতে আরও বেশী আগ্রহী হয়ে ওঠেন । আপনি যদি আপনার রাইডিং কে এডভেঞ্চার এর থেকে কিছু নিয়মকানুন এর সমষ্ঠি হিসেবে বেশী চিনে থাকেন , তাহলে আপনি একটা সুপারমটো নিয়ে নিতে পারেন ।

যাই হোক , আজ সুপারমটো নিয়ে অনেক কিছুই বললাম । আশা করি বিষয়গুলো আপনাদের ভাল লেগেছে । এরপরও আপনার মনে কোন কনফিউশন থাকলে আপনি অনলাইনে বা বিভিন্ন ফোরামে এ্ই বিষয়গুলো নিশ্চিত হতে পারেন । আজ এই পর্যন্তই । সবাইকে ধন্যবাদ ।

 

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া ।
সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*