জেনে নিন কিভাবে নিজেই বাইকের কার্বুরেটর এডজাস্ট করবেন

কার্বুরেটর ফুয়েল রেঞ্জ এডজাস্ট করার আগে মোটরসাইকেল কিছুক্ষণ চালিয়ে নেন। ইঞ্জিন গরম করার পর নিরব কোনো স্থানে মোটরসাইকেল পার্ক করুন। জালানী মিশ্রন স্ক্রু কারবুরেটরের কোথায় আছে খুঁজে বের করুন। এটা সনাক্ত করা সহজ। কার্বুরেটর এ আরেকটা স্ক্রু থাকে আইডল আরপিএম এর জন্য। থ্রটল ক্যাবল তার ফলো করলে দেখবেন , কার্বুরেটর এর যেখানে এসে থামে(মিলিত হয়), …

Review Overview

User Rating: 3.06 ( 7 votes)
0

কার্বুরেটর ফুয়েল রেঞ্জ এডজাস্ট করার আগে মোটরসাইকেল কিছুক্ষণ চালিয়ে নেন। ইঞ্জিন গরম করার পর নিরব কোনো স্থানে মোটরসাইকেল পার্ক করুন। জালানী মিশ্রন স্ক্রু কারবুরেটরের কোথায় আছে খুঁজে বের করুন। এটা সনাক্ত করা সহজ। কার্বুরেটর এ আরেকটা স্ক্রু থাকে আইডল আরপিএম এর জন্য। থ্রটল ক্যাবল তার ফলো করলে দেখবেন , কার্বুরেটর এর যেখানে এসে থামে(মিলিত হয়), ওখানেই এই আইডল স্ক্রু থাকে। আপাতত আমাদের আইডল স্ক্রুর কাজ নাই। নুন্যতম (১২০০-১৪০০ আরপিএম ) আরপিএম নির্দিষ্ট করতে এটা ব্যবহৃত হয়।

কার্বুরেটর তৃতীয় আরেকটা স্ক্রু থাকে নিচের দিকে। এটা ভিতরকার পেট্রল (কোন কারণে ময়লা পেট্রল) ফেলে দেবার জন্য ব্যবহৃত হয়। এজন্য এটার নাম ড্রেইন স্ক্রু। আপাতত এটারও কোনো কাজ নাই। আমরা কাজ করব জালানী স্ক্রু নিয়ে। এই স্ক্রু বাড়াই কমাই সহজেই টিউনিং করা যায়। এক্ষেত্রে ডান দিক বাম দিক গুলানোর কোনো দরকার নাই। একটা দেয়াল ঘড়ির কথা ভাবেন। ঘড়ির সেকেন্ড এর কাটা যেদিকে ঘোরে সেদিকে স্ক্রু ঘুরালে টাইট হবে বা তেল কম যাবে। স্ক্রু ঘড়ির কাটার উল্টোদিকে ঘুরালে ঢিলা হবে বা তেল বেশি যাবে।

কার্বুরেটর

স্টক পসিশন হলো, শুরুতে মোটরসাইকেল কেনার সময় মানুফেকচার যেভাবে সবকিছু আদর্শ সেটআপ করে দেয় সেই সেটিং হলো স্টক পসিশন সেটআপ। উদাহরণ স্বরূপ স্টক পজিসন (নাম্বার অফ টার্ন ) ৩.২৫ (এফ জেডএস / ফেজার)। এটার মানে হলো ঘড়ির কাটার দিকে জালানী স্ক্রু ঘুরাতে ঘুরাতে যখন থেমে যাবে (ফিঙ্গার টাইট), এই অবস্থান থেকে ৩.২৫ রোটেসন উল্টাদিকে ঘুরাবেন। ৩ বার ৩৬০ ডিগ্রী + ১ বার ৯০ ডিগ্রী। বা তিনবার পূর্ণ প্যাচ + এক কোয়ার্টার প্যাচ ।

যদি বলি স্টক পজিসন (নাম্বার অফ টার্ন ) ১.৫- ২.৫ (ডিস্কভার ১০০ আলী রেজা)। ঘড়ির কাটার দিকে জালানী স্ক্রু ঘুরাতে ঘুরাতে যখন থেমে যাবে (ফিঙ্গার টাইট), এই অবস্থান থেকে ২ রোটেসন উল্টাদিকে ঘুরাবেন। সর্বোচ্চ ২.৫ রোটেশন , সর্বনিম্ন ১.৫ রোটেশন এর মধ্যকার যে কোনো অবস্থান। মাইলেজ চাইলে ১.৫ রোটেশন , পারফরমেন্স চাইলে ২.৫ রোটেশন।
যদি বলি স্টক পজিসন 2+/- 1 (এপাচি ১৫০), ঘড়ির কাটার দিকে জালানী স্ক্রু ঘুরাতে ঘুরাতে যখন থেমে যাবে এই অবস্থান থেকে ২ রোটেসন উল্টাদিকে ঘুরাবেন। সর্বনিম্ন ১ রোটেশন ত্থেকে সর্বোচ্চ ৩ রোটেশন এর মধ্যকার যে কোনো অবস্থান।

কার্বুরেটর টিউনিং কাজটা কি: আমরা যখন কার্বুরেটর টিউনিং করি , আমরা ১৪.২৭ বনাম ১ এই অনুপাত নিশ্চিত করার জন্য কাজটা করি। আরেকভাবে বললে ১ গ্রাম পেট্রল এর সাথে ১৪.২৭ গ্রাম বাতাস মেশানো মিক্সচার যেন ইঞ্জিনে প্রবেশ করে সেই ব্যবস্থা করা। রেজাল্ট ? এটা ঠিক থাকলে ইঞ্জিনের পারফরমেন্স , মাইলেজ , এক্সিলারেসন সব ফাংসন টিপটপ থাকে।
‪#‎Priyo_Nil_Akash‬

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক