বাংলাদেশে লিফান কেপি১৫০ ভি২ এর বাজারমূল্য ও ফিচারসমূহ

ঢাকা বাইক শো ২০১৬-তে রাসেল ইন্ডাস্ট্রিজ বাংলাদেশে ৫টি নতুন বাইক নিয়ে আসে। এর মধ্যে দুটি অফ রোড রয়েছে মটোক্রস ট্যাগ নামে এবং লিফান কেপি মিনি ও পনি নামে অপর দুটি পকেট বাইক। এই বাইক শোতে তারা লিফান কেপি১৫০ ভি২’ও নিয়ে আসে, যেটি মূলত লিফান কেপি১৫০’র ওয়াটার কুলড ভার্সন। গত দুই বছরে লিফান বাংলাদেশের মোটরসাইকেলের বাজারে নিজেদের অবস্থান তৈরি করে নিয়েছে এবং তাদের লিফান কেপিআর১৫০ তো রীতিমতো হটকেক! এপ্রিল ২০১৫ থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৫০০ কেপিআর১৫০ বিক্রি করেছে তারা। বলা চলে, লিফান কেপিআর১৫০-ই বাংলাদেশের সবচেয়ে সাশ্রয়ী স্পোর্টস বাইক। রাসেল ইন্ডাস্ট্রিজ এর দাম নিচ্ছে ২ লক্ষ টাকা এবং এতে ২ বছরের…

Review Overview

User Rating: 4.9 ( 1 votes)

ঢাকা বাইক শো ২০১৬-তে রাসেল ইন্ডাস্ট্রিজ বাংলাদেশে ৫টি নতুন বাইক নিয়ে আসে। এর মধ্যে দুটি অফ রোড রয়েছে মটোক্রস ট্যাগ নামে এবং লিফান কেপি মিনি ও পনি নামে অপর দুটি পকেট বাইক। এই বাইক শোতে তারা লিফান কেপি১৫০ ভি২’ও নিয়ে আসে, যেটি মূলত লিফান কেপি১৫০’র ওয়াটার কুলড ভার্সন।

বাংলাদেশে লিফান কেপি ভি২গত দুই বছরে লিফান বাংলাদেশের মোটরসাইকেলের বাজারে নিজেদের অবস্থান তৈরি করে নিয়েছে এবং তাদের লিফান কেপিআর১৫০ তো রীতিমতো হটকেক! এপ্রিল ২০১৫ থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৫০০ কেপিআর১৫০ বিক্রি করেছে তারা। বলা চলে, লিফান কেপিআর১৫০-ই বাংলাদেশের সবচেয়ে সাশ্রয়ী স্পোর্টস বাইক। রাসেল ইন্ডাস্ট্রিজ এর দাম নিচ্ছে ২ লক্ষ টাকা এবং এতে ২ বছরের ইঞ্জিন ওয়ারেন্টি ৫ বছরের ফ্রি সার্ভিস দিচ্ছে তারা।

আমরা লিফান কেপি১৫০ বাইকটি প্রায় ৩০ হাজার কিমি চালিয়ে দেখেছি এবং বুঝতে পেরেছি, চাইনিজ বাইক হলেও লিফান সত্যিই ন্যায্যমূলেই একটি মানসম্মত বাইক বাজারে বিক্রি করছে। আর লিফান কেপিআর১৫০ ও কেপি১৫০’র সাফল্যের পর তারা বাজারে এনেছে লিফান কেপি১৫০ ভি২

লিফান কেপি ভি২’র ইঞ্জিনলিফান কেপি১৫০ ভি২ মূলত একটি নেকেড বাইক, যেটিতে কেপি১৫০’র চ্যাসিসকেপিআর১৫০’র ইঞ্জিন ও গিয়ারবক্স ব্যবহার করা হয়েছে। গাণিতিক ভাবে বলতে গেলে, এটি আসলে কম ওজনের চ্যাসিসে অধিক শক্তিশালী ইঞ্জিনের সমন্বিত প্রয়োগ, যা অধিক অ্যাক্সিলারেশন, গতি, ব্রেকিং ও কন্ট্রোল নিশ্চিত করবে এবং অধিক মাইলেজ দিবে।

এই বাইকটিতে ব্যবহৃত লিফান কেপিআর১৫০’র ৬ স্পিড গিয়ারের ইঞ্জিন ১৪.৮ বিএইচপি ১৪ নিউটন মিটার টর্ক উৎপন্ন করতে পারে। আর এটাতে রেডিয়েটরের কারণে সামনের বায়ু চলাচলের পথটি নিচু রাখা হয়েছে, যে কারণে বাইকটি দেখতে আরো আকর্ষণীয় মনে হয়। বাইকটি দেখতে এখন আরো বেশি আগ্রাসী মনে হয় এবং ওয়াটার কুলড ইঞ্জিন হওয়ায় এতে তাপ থেকে বাঁচার জন্য কোনো ফেয়ারিং আর লাগানো হয়নি।

সব দিক থেকে বিবেচনা করলে এতে লিফান কেপি১৫০’র চেয়ে বেশি কিছু বাহ্যিক পরিবর্তন আনা হয়নি। এটি যদিও যথেষ্ট ভালো একটি বাইক, তবে আরো ভালো হতে পারতো। বাইকটির টায়ার সাইজ ও সামনের ডিস্ক ব্রেকটি হতাশাজনক। ভালো হতো, যদি তারা লিফান কেপিআর১৫০’র টায়ার ও ব্রেকিং লিফান কেপি১৫০ ভি২-তে ব্যবহার করতো।

বাংলাদেশের বাজারে লিফান কেপি ভি২লিফান কেপি১৫০’র ক্ষেত্রে আমাদের অভিযোগ ছিলো পিছনের সাসপেনশন, চেইন স্প্রোকেট ও এয়ার ফিল্টার নিয়ে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছিলো তারা বিষয়টি সিরিয়াসলি দেখবে এবং সে কথা রাখতে তারা এই বাইকে ওই সমস্যাগুলো কাটিয়ে উঠেছে।

>>বাংলাদেশে লিফান কেপি১৫০ ভি২’র মূল্য ও শোরুম দেখুন

লিফান কেপি১৫০ ভি২-তে অধিকাংশ যন্ত্রাংশই লিফান কেপি১৫০ ও কেপিআর১৫০ থেকে নেওয়া হয়েছে। ফলে খুচরা যন্ত্রাংশ নিয়ে অহেতুক চিন্তা করার কিছু নেই। অবশ্য আমরা এখনো বাইকটি টেস্ট করে দেখতে পারিনি, তবে আশা করছি অচিরেই আমরা সে সুযোগ পাবো।

লিফান কেপি ভি২’র মিটারমূল্য : ১,৬৫,০০০ টাকা

রঙ : ম্যাট রেড, ম্যাট ব্ল্যাক, ব্ল্যাক পার্পল ও ব্ল্যাক গ্রিন।

বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন :

লিফান মোটরসাইকেলের ঢাকাস্থ বিক্রয় ও প্রদর্শন কেন্দ্র

মিরপুর শোরুম
বাড়ি-৪, সড়ক-২৮, ব্লক ডি, অ্যাভিনিউ-৩, কালশী সড়ক, মিরপুর ১১, ঢাকা-১২১৬।

হটলাইন : ০১৭৮৯ ৮৮ ২২ ২২, ০১৭৮৯ ৮৮ ১১ ২২

 লিফান কেপি ভি২’র স্পেসিফিকেশন

লিফান কেপি১৫০ ভি২’র স্পেসিফিকেশন

ইঞ্জিন : ৪-স্ট্রোক, সিঙ্গেল সিলিন্ডার (ওয়াটার কুলড)

ডিসপ্লেসমেন্ট : ১৪৯ সিসি

কম্প্রেশন রেশিও : ১১.৪:১

সর্বোচ্চ ক্ষমতা : ১৪.৮ বিএইচপি @ ৮৫০০ আরপিএম

টর্ক : ১৪ নিউটন মিটার @ ৬৫০০ আরপিএম

ট্রান্সমিশন : ৬ স্পিড

শীতলকরণ : ওয়াটার কুলড

ইগনিশন :   ইলেকট্রিক

ওজন :  ১৩৮ কেজি

দৈর্ঘ্য :  ২০৬০ মিমি

প্রস্থ : ৭৪৫ মিমি

উচ্চতা : ১০৮০ মিমি

সিটর উচ্চতা :  ৭৭৫ মিমি

হুইলবেজ : ১৩৩০ মিম

জ্বালানি ধারণক্ষমতা : ১৫ লিটার

সিট : স্প্লিট টাইপ

সামনের ব্রেক : ডিস্ক

পিচনের ব্রেক : ডিস্ক

সামনের টায়ার : ৮০/১০০-১৭

পিছনের টায়ার : ১১০/৮০-১৭

ওয়ারেন্টি : ২ বছর বা ২০ হাজার কিমি ইঞ্জিন ওয়ারেন্টি ও ৫ বছরের ফ্রি সার্ভিস।

 

 

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: সকল লেখা সুরক্ষিত !!