বাংলাদেশে হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস এর রিলিজ হচ্ছে খুব দ্রুতই । আসুন দেখে নিই বাইকটি কেমন

বাংলাদেশে হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস বাইকটি লঞ্চ হতে চলেছে । এটার বাংলাদেশের মার্কেটে আসার সম্ভাব্য দিন হল জুনের মিডলের দিকে । বাংলাদেশের নিলয় মোটরস লিমিটেড হল বাংলাদেশে হিরো মোটরসাইকেলের ডিস্ট্রিবিউটর । তারা ও তাদের টিম এই নতুন বাইকটি বাংলাদেশে আনার সব প্রস্তুতি শেষ করেছে । এমনকী তাদের টীম এই বাইকটি নিয়ে টেস্টিং ও করে ফেলেছে । আপনারা জানেন যে কয়েক মাস আগে আমরা হিরো এক্সট্রীম নিয়ে একটা টেস্ট রাইড দিয়েছিলাম । এবং সে বিষয়ে একটা রিভিউও আছে বাইকবিডিতে । কিন্তু হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস সবদিক থেকে একটা সম্পূর্ণ আলাদা মেশিন হিরো এক্সট্রীম থেকে । কিছুদিন আগে আমরা এই বাইকটি দেখার ও টেস্ট…

Review Overview

User Rating: 4.39 ( 5 votes)

বাংলাদেশে হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস বাইকটি লঞ্চ হতে চলেছে । এটার বাংলাদেশের মার্কেটে আসার সম্ভাব্য দিন হল জুনের মিডলের দিকে । বাংলাদেশের নিলয় মোটরস লিমিটেড হল বাংলাদেশে হিরো মোটরসাইকেলের ডিস্ট্রিবিউটর । তারা ও তাদের টিম এই নতুন বাইকটি বাংলাদেশে আনার সব প্রস্তুতি শেষ করেছে । এমনকী তাদের টীম এই বাইকটি নিয়ে টেস্টিং ও করে ফেলেছে । আপনারা জানেন যে কয়েক মাস আগে আমরা হিরো এক্সট্রীম নিয়ে একটা টেস্ট রাইড দিয়েছিলাম । এবং সে বিষয়ে একটা রিভিউও আছে বাইকবিডিতে । কিন্তু হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস সবদিক থেকে একটা সম্পূর্ণ আলাদা মেশিন হিরো এক্সট্রীম থেকে ।

বাংলাদেশে হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস

কিছুদিন আগে আমরা এই বাইকটি দেখার ও টেস্ট করার একটা সুযোগ পেয়েছিলাম কারণ তাদের সার্ভিস টীম এটার পাওয়ার টর্ক বিভিন্ন কিছূ টেস্ট করছিল । এসময় বাইকটি দেখে আমাদের যেটা বলতে হচ্ছে সেটা হল বাইকটি একটা সর্ম্পর্ণ নতুন লুকের এবং নতুন সব ফিচারের একটা বাইক।

হিরো এক্সট্রীম বাইক

একনজর দেখেই প্রেমে পড়াড় মত একটা বাইক হল হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস । অনেকরর ভাবছেন যে বাইকটিতে শুধুই হিরো এক্সট্রীম এর সাথে একটা নতুন স্টীকার লাগানো হয়েছে । কিন্তু এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল । নামের সাথে সাথে কোম্পানী বাইকটির ডিজাইনে ও কসমেটিকস পার্টে অনেক পরিবর্তন এনেছে । অঅর একটা বড় পরিবর্তন যেটা হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টে যুক্ত হয়েছে সেটা হল এটার ইন্জিনের অনেক বেশী পাওয়ার ।

আমরা হিরো এক্সট্রীম ও হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস ২ টা বাইকই ভুল ভালভঅবে প্রতিটা এঙ্গেল থেকে পর্যবেক্ষণ করেছি । এখানে আমরা দুটি বাইকের ভেতর আমূল পরিবর্তন লক্ষ্য করেছি । এমনকী হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস রিলিজ হবার পর এটাকে নিয়ে অঅগের হিরো এক্সট্রীম এর একটা কমপারেটিভ রিভিউ ও লেখা সম্ভব ।

হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টসকে বাংলাদেশের

বাইকটিতে সবথেকে বড় যে ফ্যাক্টটা কাজ করছে সেটা হল বাইকটির পাওয়ার । এটাতে এক্সট্রীম থেকে অনেক বেশী পাওয়ার যোগ করা হয়েছে । হ্যা , তারা শুধুমাত্র ১ বিএইচপি শক্তি বেশী যোগ করেছে কিন্তু গাণিতিক ভাবে হিসেব করলে এটা বাইকের ইন্জিন এর পাওয়ার ৭% বেড়ে গেছে । যেখানে হোন্ডা সিবিআর ১৫০আর এ থেকে সামান্য একটু বেশী পাওয়ার রয়েছে । কোম্পানী অবশ্য বাইকটিকে এক্সট্রা একটা .৭% বেশী টর্কও দিয়েছে । এর ফলে বাইকটির ক্যারিং এবিলিটি অনেকটা বৃদ্ধি পাবে । এইসব বৈশিষ্ট হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টসকে বাংলাদেশের এই দামের ভেতর সবথেকে বেশী পাওয়ারফুল ১৫০ সিসির বাইক হিসেবে তুলে ধরেছে।

সবথেকে বেশী পাওয়ারফুল ১৫০ সিসির বাইক

টেকনিক্যাল স্পেসেফিকেশন :

Engine:

Engine Type Air cooled, 4-stroke single cylinder OHC, Vertical Engine
Displacement 149.2 CC
Maximum Power 15.2 BHP @8500 RPM
Maximum Torque 13.50 NM @ 7000 RPM
Bore x Stroke 57.3mm x 57.8 mm
Compression Ratio 10 : 1
Carburetor CV Type with Carburetor Controlled Variable Ignition

Transmission & Chassis:

Clutch Multi-plate wet clutch
Gear box 5 Speed constant mesh
Chassis Type Tubular, Diamond Type

Suspension:

Front Telescopic Hydraulic Type
Rear Rectangular Swing Arm with 5 step Adjustable Gas Reservoir Suspension

Wheels & Tires:

Rim Front 18 x 1.85, Rear 18 x 2.15, Both Alloy Rim
Tire Front 80 / 100 x 18 – 47 P, Rear 110 / 90 x 18 – 61 P, Both Tubeless

Electricals:

Battery 12 V – 4 Ah MF Battery
Head Lamp 12 V – 35W / 35W – Halogen bulb, Trapezoidal MFR
Tail/Stop Lamp 12 V – 0.5 W / 4.1 W (LED Lamps)
Turn Signal Lamp 12 V – 10 W (Amber Bulb) x 4 nos (MFR Clear Lens)
Pilot Lamp 12 V – Twin Lamp – LED

Dimension:

Length x Width x Height 2100 mm x 780 mm x 1080 mm
Wheelbase 1325 mm
Ground Clearance 145 mm
Kerb Weight 146 Kg (Brakes – FR/RR -> Disc/Drum)
147 Kg (Brakes – FR/RR -> Disc/Disc)
Max Loading 130 Kg

এক্সট্রীম স্পোর্টস বাইকটি এর হেডলাইটের সাথে সম্পূর্ণ নতুন

এক্সট্রীম স্পোর্টস বাইকটি এর হেডলাইটের সাথে সম্পূর্ণ নতুন একটা লুকিং এর মত লাগে এবং এটাকে এই হেডলাইটের কারণে আরও বেশী এগ্রেসিভ লুকিং দেখায় । অঅর রাতের বেলায় এটাকে চরম আকর্ষণীয় লাগে । এই বাইকটিতে এক্সট্রা স্পিলিট সিট যুক্ত করা হয়েছে এবং ইন্জিনের জন্য একটা মুড গার্ড লাগানো হয়েছে যেটা এর ইন্জিনকে সব ধূলাবালি ও কাদা মাটির হাত থেকে রক্ষা করবে । তারা বাইকটিতে একটা খুবই সুন্দর ও স্টাইলিশ টার্নিং ইনডিকেটর যোগ করেছে । কোম্পানী বাইকটির জন্য একটা ফুল চেইন কভার দিয়েছে যাতে করে এটার চেইন আবর্জনা মুক্ত থাকে ।

বাইকটিতে একটা খুবই সুন্দর ও স্টাইলিশ টার্নিং ইনডিকেটর

বাইকটির ড্যাসবোর্ড আগের হিরো সিবিজেড এক্সট্রীম এর মতই একদমই সেম । আরেকটি মজার বিষয় হল কোম্পানী বাইকটির ইগনিশন সুইচ টি এর গলার কাছে সেট করেছে । এটার মাধ্যমে বাইকটি কিছূ নতুন পরিবর্তন এনেছে যেটা হিরোর বাইকে আগে কখনও ছিল না ।

বাইকের সাসপেনশন রিম ও টায়ার সেম

দুটি বাইকের সাসপেনশন রিম ও টায়ার সেম । তবে আরেকটি পরিবর্তন যেটা হল বাইকটির ওজন আগের এক্সট্রীম থে ১ কেজি বাড়ানো হয়েছে ।

হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস টীম দাবী করেছে যে বাইকটি একটা ১৫০ সিসি বাইক হিসেবে একটা বেশ ভাল মাইলেজ দিবে এবং তারা বাইকটির দাম বাংলাদেশের সবার সাধ্যের মধ্যে রাখারও সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে । তাই , মনে হয় এতসময়ে এই বাইকটির জন্য অনেকেই মুখিয়ে আছেন । আমরাও বাইকটি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন । তাই , হিরো এক্সট্রীম স্পোর্টস বাইকটি রোডে দেখার জন্য সবাইকে একটু কিছূদিন ওয়েট করতে হবে।

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: সকল লেখা সুরক্ষিত !!