বাইকের বিভিন্ন পার্টসের টোটাল মেইনটেইন্স টিপস

বাংলাদেশে বর্তমানে বাইকের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে । বেশীরভাগ মানুষই চায় তার একটা বাইক থাকুক যেটা সে নিজস্ব কাজে নিয়মিত ইউজ করতে পারে । আর যাদের একটা বাইক আছে তারা চায় বাইকটিকে আপগ্রেড করে আরেকটা নতুন বাইক নিতে । বাইক বাংলাদেশে একটা প্যাশন হয়ে যাচ্ছে দিন দিন । আর , সেই পরিমানে বাইক বাইরে থেকে ইমপোর্ট হচ্ছে বা বাংলাদেশেই তৈরী হচ্ছে । এবং বাংলাদেশের মানুষ সেই পরিমাণে নতুন বাইক কিনছে ।

বাইকের বিভিন্ন পার্টসের টোটাল মেইনটেইন্স টিপস

কিন্তু , আসলে বাইক কিনে অনেকেই হতাশ হয়ে হয়ে যান ভাল পারফরমেন্স বা তিনি যে ধরণের পারফরমেন্স বাইকটার কাছ থেকে ।তার কারণ হল বাইকের মেইনটেইন্স । বাইক কিনে যদি তার মেইনটেইন্স ভালভাবে করা না যায় তবে বাইকের পারফরমেন্স সহ সবকিছুই ড্যামেজ হয়ে যায় । তাই , বাইক কেনার পর সর্বপ্রথম দরকার বাইকের সঠিক যত্ন নেওয়া । আর সেই বিষযেই আজকের এই পোষ্ট । আসুন , আমরা জেনে নিই বাইকের টোটাল মেইনটেইন্স টিপস।

টায়ার এর যত্ন :

বাইকের টায়ার হল বাইকের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ একটা পার্ট । ইন্জিন এর পারফরমেন্স মূলত এ্যাপ্লাই হয় বাইকের চাকার মাধ্যমে । তাই চাকার যত্ন নেওয়া প্রথমেই দরকার । চাকা যদি ঠিক না থাকে তাহলে বাইকের ব্রেকিং , সাসপেনশন , কন্ট্রোলিং , ইন্জিন সবকিছুরই ক্ষতি হতে পারে । তাই আপনার টায়ারের প্রেশার আপনার কোম্পানীর রিকমেন্ডেড প্রেশার অনুযায়য় রাখুন । আর যদি আপনার পেছনেনর সিটে কেউ বসে থাকে তাহলে চাকার প্রেশারও একটু বাড়ানোর দরকার হতে পারে যেটাও ম্যানুয়ালে দেওয়া আছে । সেই অনুযায়ী বাইকের টায়ারের প্রেশার ঠিক রাখুন । আর ভাল পারফরমেন্স বা বেশী এক্সেলেরেশন পাবার জন্য কখনও চাকার প্রেশার রিকমেন্ডেড প্রেশার থেকে বাড়াবেন না । কারণ , এটা আপনার বাইকের সাসপেনশন সিস্টেম , ব্রেকিং ও কন্ট্রোলিংএ ঝামেলা করতে পারে । এমনকী একটা ভাল রাস্তা আপনার কাছে উচুনীচু বলে মনে হতে পারে প্রেশার বেশী থাকলে । তাই , সবসময়ই বাইকের চাকার প্রেশার রিকমেন্ডেড প্রেশার অনুযায়ী রাখুন।

ব্রেক এর যত্ন :

ব্রেক হল বাইকের কন্টোলিং এর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ । এটা ঠিক না থাকলে বাইকের এক্সিডেন্ট ঘটার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায় । তাই ব্রেকের যত্ন নিওয়া খুবই জরুরী । ব্রেকটি ভালভাবে কোন বাধা ছাড়াই মুভ করছে কীনা সেটা চেক করুন । যদি ব্রেকটি কোনস্থানে ঘর্ষণের সৃষ্টি করে তবে এটা ইন্জিনের ক্ষতি করতে পারে এবং আপনি আপনার কাঙ্খিত পারফরমেন্স নাও পেতে পারেন । তাই , আপনার বাইকের ব্রেক প্যাড ফ্রিকোয়েন্টলি মুভ করছে কিনা সেটা চেক করুন । বাইকের ব্রেকিং পাওয়া যেকোন অবস্থায় বাইককে থামানোর মত স্ট্রং আছে কিনা সেটাও চেক করুন । বাইকের দুই চাকা ব্রেকের সাথে কোন ঘর্ষণ ছঅড়াই ফ্রীলি মুভ করছে কিনা সেটাও দেখার বিষয় । আর , ডিস্ক বা হাইড্রোলিক ব্রেক হলে ব্রেকের অয়েল সময়মত চেঞ্জ করুন । ফলে বাইকের ব্রেকিং অনেক ভাল থাকবে।

চেইন এর যত্ন :

বাইকের চেইন এ বাইকের একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ । কারণ , ইন্জিনের উৎপন্ন শক্তিকে গতিতে রূপান্তরিত করে বাইকের চেইন । তাই চেইন এর যত্ন নেওয়া আবশ্যক । বাইকের চেইন সবসময় ঠিক আছি কিনা সেটা চেক করুন । দরকার হলে চেইন কভার খুলে মাঝে মাঝে চেইনটা ভালভাবে কোন ব্রাশ দ্বারা পরিষ্কার করুন । তারপর এটা ভালভাবে কোন শুকনা কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন । চেইন ঠিকমত এডযাস্ট আছে কিনা সেটা চেক করুন । চেইন এর লুব্রিকেন্ট যেটা চেইনকে ফ্রিকোয়েন্টলি মুভ করতে সহায়তা করে সেটার পরিমাণ চেক করুন । কম থাকলে উপযুক্ত পরিমানে লুব্রিকেন্ট ইউজ করুন । তবে চেইন পরিষ্কার করতে কখনও পানি ব্যাবহার করবেন না । তাহলে এটা পরবর্তীতে চেইনে জং ধরাতে পারে।

কিভাবে মোটর সাইকেল এর চেইন পরিষ্কার করবেন ? দেখুন এই ভিডিও>> 

 

এয়ার ফিল্টার এর যত্ন :

এয়ার ফিল্টার সবসময় আপ টু ডেট রাখুন । কারণ , বাংলাদেশের রোডের কন্ডিশনে এয়ার ফিল্টারে প্রচুর পরিমাণে ধুলাবালি বা অন্যান্য ময়লা আবর্জনা জমতে পারে যেটা এয়ার ফিল্টার এর কার্যকারীতা কমিয়ে দিতে পারে । ফলে এয়ার ফিল্টার সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন । আর , রিকমেন্ডেড টাইম অনুযায়ী বাইকের এয়ার ফিল্টার চেঞ্জ করুন । এর ফলে আপনার বাইক অনেক ভাল পারফরমেন্স দেবে এবং এটার ইন্জিনও অনেক ভাল থাকবে ।

সেই সাথে বাইকের ক্লাচ সঠিকভাবে বাইকের সাথে সেট করা থাকা দরকার । যদি আপনি ক্লাচটি বেমী টাইট করে ফেলেন তাহলে এটা অনেক অসুবিধা করতে পারে । যেমন , ক্লাচ যদি বেশী টাইট থাকে তাহলে এটা বাইকের স্লিপের কারণ হয়ে দাড়াতে পারে বা বেশী তেল খরচ করে ফেলতে পারে । তাই ক্লাচ সবসময় রিকেমেন্ডেড প্রেশার অনুযায়য় টাইট রাখুন।

ইন্জিন এর যত্ন :

আপনার বাইকের ইন্জিন হল বাইকের হার্ট স্বরূপ । ইন্জিন ছাড়া বাইক অচল । তাই ইন্জিনের দিকে সবথেকে বেশী নজর দিতে হবে । আপনার বাইকের ইন্জিন নিয়মিত টিউন করান এবং ভাল পারফরমেন্স ও ফুয়েল ইফিসিয়েন্সির জন্য ইন্জিনেটি নিয়মিত চেক করান ও কোন অসুবিধা হলে সাথে সাথে সারিয়ে নিন । ইন্জিনের কার্বুরেটর নিয়মিত পরিষ্কার করুন । স্পার্ক প্লাগে কার্বণ জমলে সেটা ভালভাবে রিমুভ করুন । ভালগুলোর যত্ন নিন । পিষ্টন এর কাজে কোন সমস্যা হচ্ছে কীনা সেটা দেখুন । কোন কারণে পিষ্টন ক্ষয় হচ্ছে কীনা চেক করুন । হয়ে থাকলে সেই ইস্যুটা সলভ করুন । যদি ইন্জিনের কোন অংশ ব্যাবহারের অনুপযুক্ত হয়ে যায় তাহলে সেটা সেই সময়ই বাদ দিয়ে নতুন একই আরেকটা দিয়ে রিপ্লেস করুন । ইন্জিনএর দহনকক্ষ বা চেম্বারে ঠিকমত দহন হচ্ছে কিনা সেটা দেখুন । না হলে ইন্জিন থেকে কাল ধোয়া বা এই জাতীয় কিছু বের হবে । সেটা ঠিক করুন।

ইন্জিন অয়েল

ইন্জিন অয়েল :

ইন্জিন অয়েল হল ইন্জিনের প্রাণ । এটা ইন্জিনকে সঠিকভাবে চলতে সহায়তা করে । এটা একপ্রকার লুব্রিকেন্ট যেটা ইন্জিনের সব পার্টস এর মুভমেন্ট অনেক সহজ করে দেয় । ইন্জিন অয়েল সময়মত পরিবর্তন করুন এবং ভাল ও কোম্পানী রিকমেন্ডেড ইন্জিন ওয়েল ইউজ করার চেষ্টা করুন। ইন্জিন অয়েল ঠিকঠাক থাকলে বাইকের পারফরমেন্সও ভাল থাকে এবং জ্বালানী খরচও কমে যায় । তাই বিষয়টা ভুললে চলবে না ।

আশা করি টিপসগুলো আপনাদের কাজে লাগবে । টিপসগুলো মেনে চলার চেষ্টা করুন । ফলে আপনার বাইক অত্যান্ত ভাল সার্ভিস দেবে এবং আপনি যদি বাইক লং টাইম ধরে ইউজ করতে চান সেক্ষেত্রে আপনার বাইকের পারফরমেন্স ও ফুয়েল ইফিসিয়েন্সি ঠিক রাখতে সহায়তা করবে । আজ এই পর্যন্তই । ধন্যবাদ ।

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক