মোটরসাইকেলের জন্য এইচআইডি ও প্রোজেক্টর লাইট

অনেক বন্ধুই মোটরসাইকেলের জন্য এইচআইডি ও প্রোজেক্টর লাইট সম্পর্কে আমার কাছে জানতে চেয়েছে যেমন এগুলো কিভাবে বাইকে লাগাতে হয় ইত্যাদি । তাই আমি আজ তাদের এ সম্পর্কে একটি ধারণা দেয়ার চেষ্টা করব ।

motorcycle-auto-hid-headlight-xenon-kit

সতর্কতাঃ  নিম্মে বর্ণিত পদ্ধতি কেবলমাত্র যেসব বাইকে এসি সরবরাহ ব্যবস্থা রয়েছে সেসব বাইকের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য । কিছু বাইকে কয়েল প্যাচিয়ে যেতে পারে তাই দয়া করে এইচআইডি-র সরবরাহকারী দ্বারা নিশ্চিত হোন অথবা যে আগে এটা তার বাইকে করেছে তার সাথে কথা বলে নিশ্চিত হোন ।

প্রোজেক্টর ছাড়া জেনন ব্যাবহার আইনত অবৈধ……. এটা জেনে রাখার জন্য ভালো আইন, কিন্তু বাংলাদেশে এর কোন প্রয়োগ নেই…… তারা শুধু সিসি নিয়ে মাথা ঘামায়……

HID-Motorcycle-Kit

প্রথমেই এইচআইডি সম্পর্কে বলিঃ

১. বিভিন্ন প্রকারের এইচআইডি…. এইচ১, এইচ৩,এইচ৪, এইচ৭ ।

২. এইচ৪ দুই ধরনের পাওয়া যায়, সিঙ্গেল জেনন ও বাই জেনন । সিঙ্গেল জেননে নিচের বিমের জন্য  একটি হ্যালোজেন ভাল্ভ ও উপরের বিমের জন্য একটি জেনন থাকে । বাই জেননে উভয় বিমের জন্যই জেনন থাকে ।                                                                                                        ৩. বিভিন্ন ওয়াটের এইচআইডি- ৩৫ ওয়াট, ৫৫ ওয়াট, ১০০ ওয়াট ।

৪. রঙের তাপমাত্রা সাধারনত ৩০০০-১২০০০ কেলভিন হয়ে থাকে । ৪৩০০ কেলভিনের উপরে ব্যাবহার করা উচিত নয় । এইচআইডি-র দাম ২০০০(কমদামী চায়না) টাকা থেকে ২০০০০(ফিলিপস) টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে । কিছু ডিলার সর্বাধিক ১ বছর পর্যন্ত ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকে ।

Motorcycle_hid_projector

এখন আসি প্রোজেক্টরঃ     

১. প্রোজেক্টর বাংলাদেশের শুধুমাত্র কিছু নির্দিষ্ট এলাকায় পাওয়া যায় ।

২. প্রোজেক্টর এর প্রকারভেদ উপরে উল্লেখিত এইচআইডি-র মতই ।

৩. বাইজেনন প্রোজেক্টর কিছুটা দামী ।

৪. একটি প্রোজেক্টর এ কেবল মাত্র নির্দিষ্ট বৈশিষ্ট্যের একটি এইচআইডি ব্যাবহার করা যাবে ।

৫. প্রোজেক্টর এর দাম সাধারনত ২কে থেকে শুরু করে ১৫কে পর্যন্ত হয়ে থাকে ।

Hid-Xenon-Kit-for-Motorcycle-

 বাইকে স্থাপনঃ

১. প্রথমেই হেডলাইট খুলে ফেলুন ।

২. এখন রিফ্লেক্টর থেকে আয়নাগুলো পৃথক করে নিন । পুরো ব্যবস্থাটিকে একটি ওভেনের মধ্যে রাখুন কয়েক মিনিট পরেই গাম গলে গেলে সেগুলোকে সহজেই পৃথক করা যাবে ।

৩. রিফ্লেক্টর এর বাকি অংশগুলো কেটে ফেলতে পারেন যদিও এটা প্রয়োজনীয় নয় ।

৪. প্রোজেক্টর স্থাপন করার সময় খেয়াল রাখুন যাতে উপরের বিম নিচে বা নিচের বিম উপরে স্থাপিত না হয় ।                                                                                                                         ৫. একবার যদি প্রোজেক্টরটি যথাস্থানে বসিয়ে ফেলেন তাহলে এটাকে ক্ল্যাম্প বা এম- সিল(খুবই কঠিন ও নড়াচড়া করে না)  ব্যাবহার করে লাগিয়ে দিন ।

৬. আয়না রিফ্লেক্টরের পিছনে স্থাপন করুন যেভাবে আপনি এটা খুলেছিলেন ।

৭. এখন প্রোজেক্টর- এ এইচআইডি স্থাপন করুন । আপনাকে অভিনন্দন কারণ এখন আপনার উচ্চ ক্ষমতার ফ্লাড লাইট রয়েছে । সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে আপনার ৪কে থেকে ৩০কে পর্যন্ত খরচ হতে পারে ।

তাই অন্ধকারে উজ্জ্বল আলো পেতে আপনার মোটরসাইকেলের জন্য এইচআইডি ও প্রোজেক্টর লাইট ব্যাবহার করুন ।

-রাসেল রাইডার

 

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Sign up to our newsletter!