রানার মোটরবাইকের নতুন অফার

সুজুকি জিক্সার নিয়ে আমার অভিজ্ঞতা- অনিক

বাইক  এর প্রতি  আমার ভালবাসা  নিয়ে কথা  বলতে গেলে অনেক লম্বা  কাহিনি  বলতে হবে  , তো সেই  লম্বা  কাহিনি ছোট করে বলতে গেলে  এভাবে বলা  যায়।

ক্লাস ফোর এ কাকুর HONDA CD 80  নিয়ে প্রথম বাইক চালাই  , এবং  দেয়ালের সাথে বাইক  লাগায় দিয়ে বাইক নিয়ে আছার খাই । তার পর ছোট মামা আমার উপর আইন জারি করে ক্লাস ৮ এ ওঠার আগে আর বাইক না । এখানেই  আমার বাইক  চালানোর প্রথম অধ্যায় এর সমাপ্তি ।

এর পড় সত্যি সত্যি  ক্লাস  ৮ এ আমি ২য়বার বাইক চালানো  শিখি  এক  ভাই এর জিয়ালিং ১২৫ সি সি দিয়ে ।

সুজুকি জিক্সার মালিকানা রিভিউ

সুজুকি জিক্সার নিয়ে বিস্তারিত ঃ

এখন আসি সুজুকি জিক্সার এর প্রসঙ্গে । সুজুকি জিক্সার ২০১৫ এর সব থেকে বেশি এওয়ার্ড উইনিং বাইক। আর আমার নিজের  দ্বিতীয় বাইক । যেদিন প্রথম এই বাইকটার ছবি  অনলাইন এ সেইদিনই প্রেমে পরে যাই।

সেইদিনই ডিসিসান নেই  এইটা বাংলাদেশে আসলে আমি  কিনবো। সুজুকি  মটরস ইন্ডিয়া জিক্সার প্রথমে ইন্ডিয়াতে লাউঞ্জ করে , বাংলাদেশে সুজুকি বাইক আমদানি করে র‍্যাঙ্কন মোটরস , যারা বাংলাদেশে মারসেডিস  বেঞ্জ আর মিতসুবিশি এর গাড়ি বাজারজাত করে ।

তো প্রথমে র‍্যাঙ্কন এ জিক্সার এর জন্য প্রি অর্ডার করলাম  ফ্রি । ২য় বার আবার প্রি অর্ডার করলাম ২০০০০ টাকা দিয়ে  ,  এর পর ওরা আমার নাম্বারে sms দেয় পুরা  পেইমেন্ট এর জন্য  । সেখানে লেখা ছিলো পেইমেট করলে ওরা ৫ তারিখ  এ বাইক দিবে  । আমি তা খেয়াল করি না  , তারপর  ফেব্রুয়ারির ৭ তারিখ ওদের এসএমএস দেখে  দ্রুত ওদের গুলশান শো রুম এ যাই   । ওরা বলে  ওদের টাকা জমা নেওয়া শেষ  বাইক ডেলভারি হয়ে গেছে এবং আমি  তা মিস করেছেন , তাই  আপনাকে বাইকের  জন্য আরো এক মাস অপেক্ষা করতে হবে  ।

আমার মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পরলো , ওদের অনেক রিকোয়েস্ট করলাম তো ওরা আমাকে বল্লো যত তারাতারি পারেন আপনার টাকা জমা দেন আমরা পারলে আপনার বাইক  দিবো । তো আমি তার পর দিন বাকি  টাকা নিয়ে জমা দিলাম ।  তারপর অপেক্ষা  করতে  লাগলাম আমার কাঙ্কখিত বাইক  এর জন্য  ।  অবশেষ  এ ওরা আমাকে  ১৩ তারিখ ফোন দিয়ে বল্লো আমাকে ১৪ ফেব্রুয়ারি বাইক দিবে  ।

সুজুকি জিক্সার রিভভিউ

আমি  র‌্যাংগস এর শো রুম থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি  আমার বাইক  নিলাম ।  মনে  হল ,  ভালোবাসা দিবস এ ভালোবাসার বস্তু  পেলাম ।  অন্য দের থেকে কয়েকদিন পরে বাইক পাবার কষ্ট ভুলে  গেলাম  , কারন আমি পেয়েছি  একটা স্পেশাল দিনে  ।

জিক্সার এর স্পেসিফিকেশন ঃ

Engine

Type

4-stroke, 1-cylinder, air-cooled

Valve System

SOHC, 2 Valve

Displacement

154.9 cm3

Bore x Stroke

56.0 mm x 62.9 mm

Engine Output

[email protected] rpm

Torque

14 Nm @ 6000 rpm

Fuel System

Carburetor

Starter System

Electric

Transmission Type

5 Speed, MT

Suspension

Front

Telescopic

Rear

Swing Arm, Mono Suspension

Brake

Front

Single Disc

Rear

Drum

Tyre Size

Front

100/80-17-Tubeless

Rear

140/60R-17-Tubeless

Dimensions

Wheels

Cast

Length

2,050 mm

Width

785 mm

Height

1,030 mm

Wheel Base

1,330 mm

Ground Clearance

160 mm

Seat Height

780 mm

Kerb Mass

135 kg

Fuel Tank Capacity

12 Ltrs

Electrical

Battery

Maintenance free 12C, 3Ah

Headlight

12V 35/35W

Tail Light

LED

সুজুকি বাইক বাংলাদেশ

পারফরমেন্স এবং অভিজ্ঞতা  ঃ

 এক কথায় সুজুকি জিক্সার চালিয়ে আমি  পুরা অভিভুত ,  অদ্ভুত এক  মেশিন এই  জিক্সার , লুক ,  স্মুথ ইঞ্জিন , মাইলেজ (৪০+ কিলোমিটার প্রতি লিটার জ্বালানী তেল এ ) , কমফোর্ট , টপ স্পিড এর এক অদ্ভুত সংমিশ্রণ এই  জিক্সার  ।  এখন পর্যন্ত আমি  আমার জিক্সার এ ৯০০+ কি মি  এর মত চালিয়েছি  , এর ভেতর একবার ইঞ্জিন অয়েল চেঞ্জ করেছি । আমি  জিক্সার এ মোবিল 4T 20-40 ইঞ্জিন অয়েল ব্যবহার করছি । আর জ্বালানী  হিসেবে অকটেন। এর ভেতর আমি র‌্যাংগস থেকে আমার প্রথম ফ্রি সারভিসিং সম্পন্ন করেছি। ওদের  বাইক সার্ভিসিং সেন্টার এখোনো নাই  তাই  ওরা ওদের গাড়ি সার্ভিসিং সেন্টার এর পাশে বাইক এর সার্ভিসিং করে।  ওদের ব্যবহার এবং পরিবেশ ভালো। যত্ন করে কাজ করে। বলেছে কোন প্রব্লেম হলে নিয়ে যেতে সার্ভিসিং এর ডেট না থাকলেও।

আমার মতে আমাদের দেশের  ১৫০  সি সি সেগমেন্ট এর এয়ার কুল বাইক এর ভেতর সুজুকি জিক্সার এখন প্রথম

সুজুকি জিক্সার এর খারাপ দিক ঃ

কোন বাইকই একশত ভাগ নিখুত না  , অবশ্যই সুজুকি জিক্সার ও এর বাইরে না । যতই আমার বাইক হোক আমি  এর দোষ গোপন করবো না ।

১। এর হর্ন এর শব্দ ভালো না , অনেক আস্তে শোনা যায়।

২। ইঞ্জিন এর শব্দ  খুব কম , যারা অনেক  ম্যানলি নয়েজ পছন্দ করেন তারা এটা পছন্দ করবে না।… বাইক এর কোন বাম্পার নাই , এই  বাম্পার মেলানো অনেক কষ্ট।

৪। দুইজন এর বেশি চড়া কষ্টকর সিট ছোট।

৫। সুইচ গুলোর প্লাস্টিক আরো ভালো হতে পারতো ।

৬। সামনের লাইট আরেকটু বড় হলে ভালো লাগতো।

সুজুকি জিক্সার বাইক এর দাম

সুজুকি জিক্সার তরুন দের বাইক বিশেষত ১৮-৩০ বছর এর রাইডার দের জন্য সবথেকে উপযোগি । ২.৩৫ হাজার দাম হয়তো অন্যান্য ইন্ডিয়ান ব্রান্ড এর বাইক থেকে সামান্য বেশি তবে , আপনি এটা চালালে সে কষ্ট ভুলে যাবেন । তবে অবশেষে একটা কথাই বলতে পারি , সব রিভিউ সব পুরস্কারই ব্যর্থ হয়ে যাবে আপনি যদি আপনার বাইক এর যত্ন না করেন । আপনার বাইক তখনি আপনাকে পুরা পারফরমেন্স দেবে যখন সে ভালো থাকবে ।তাই নিজের বাইক এর যত্ন করুন , রেগুলার সার্ভিসিং করুন , যে ব্রান্ড এর বাইক ই হোক আর যে দেশেরই হোক সে আপনাকে হতাশ করবে না ।

 –হাসনাইন অনিক

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*