হালকা বাইক আসলে কাদের জন্য এবং এর সুবিধা ও অসুবিধা

বাইক সাধারণত বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে । বিভিন্ন দৃষ্টি থেকে এর বিভিন্নভাবে প্রকারভেদ করা যায় । তবে বাইকগুলোর ভেতর ২ টা মেইন ক্যাটাগরি রয়েছে । সেগুলো হল হালকা বাইক এবং ভারী বাইক । আজ আমরা হালকা বাইকগুলোর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করব । অনেকে হালকা বাইক পছন্দ করেন , আবার অনেকে বেশ ভারী বাইক । তো , হালকা বাইকের সুবিধা অসুবিধা গুলো নিয়ে আজ আমরা বিশদ আলোচনা করব । হালকা বাইকগুলো কেন আলাদা একটা হালকা বাইকের যে প্রথম বৈশিষ্ঠ সেটা হল এর পাওয়ার । সাধারণত সব হালকা টাইপের বাইকই বেশ ভাল ইন্জিন পাওয়ারের সাথে আসে । এটা হল হালকা বাইকের…

Review Overview

User Rating: 3.9 ( 3 votes)

বাইক সাধারণত বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে । বিভিন্ন দৃষ্টি থেকে এর বিভিন্নভাবে প্রকারভেদ করা যায় । তবে বাইকগুলোর ভেতর ২ টা মেইন ক্যাটাগরি রয়েছে । সেগুলো হল হালকা বাইক এবং ভারী বাইক । আজ আমরা হালকা বাইকগুলোর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করব । অনেকে হালকা বাইক পছন্দ করেন , আবার অনেকে বেশ ভারী বাইক । তো , হালকা বাইকের সুবিধা অসুবিধা গুলো নিয়ে আজ আমরা বিশদ আলোচনা করব ।

হালকা বাইক

হালকা বাইকগুলো কেন আলাদা

একটা হালকা বাইকের যে প্রথম বৈশিষ্ঠ সেটা হল এর পাওয়ার । সাধারণত সব হালকা টাইপের বাইকই বেশ ভাল ইন্জিন পাওয়ারের সাথে আসে । এটা হল হালকা বাইকের মেইন্ একটা সুবিধা । আর বেশ হালকা হবার কারণে এই বাইক গুলো খুব দ্রুত এক্সেলেরেট করতে পারে এবং অসাধারণ স্পীড তুলতে পারে । যেকোন রেসিং এ আপনি হালকা বাইক নিয়ে বেশ সুবিধা পাবেন । আর যেকোন রোডে , সেটা জঙ্গল ই হোক , আর বেশ উচুনীচু পাহাড়ী রাস্তায় ই হোক , আপনি একটা হালকা বাইক নিয়ে সব ক্ষেত্রেই সব পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারবেন । বেশ হালকা হবার কারণে এই বাইকগুলো কন্ট্রোল করাও বেশ সহজ।

রেসিং এর জন্য পারফেক্ট বাইক

হালকা বাইকগুলো নিয়ে আপনি রেসিং এর ক্ষেত্রে প্রচুর সুবিধা পাবেন । হালকা বাইক নিয়ে আপনি যেকোন রেসে জাস্ট থ্রোটল ধরেই যেকোন গ্যাপ কভার দিতে পারবেন । এজন্য আপনার এক্সট্রা কোন টেকনিক এপ্লাই করতে হবে না যেটা অন্যান্য বাইক এ আপনাকে করতে হত । এমনী কোন গিয়ার চেঞ্জ না করেও আপনি অন্য যেকোন বাইককে ওভারটেক করতে পারবেন ।

চুরি হবার সম্ভাবনা রয়েছে

কিন্তু হালকা বাইকের যে অসুবিধা সেটা হল এই বাইকগুলো খুব বেশী চুরি হয় । কারন , অত্যান্ত স্পীড তোলার ক্ষমতা থাকার কারণে এটা একবার কেউ যদি হাতে পেয়ে যায় তবে তাকে খুজে বের করা বা তার পেছনে ধাওয়া করে ধরা খুব্ই কষ্টকর একটা ব্যাপার । আর এই হালকা বাইকগুরো আপনি কোন অনিরাপদ স্থানে রাখলে এটার জন্য অনেক সিকিউরিটির প্রয়োজন হয় । কারণ , বাইকগুলো উচু করে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নিয়ে যাওয়া খুবই সিম্পল ব্যাপার ।

সব আবহাওয়ায় সমানভাবে পারফরমেন্স দেয় না

বাংলাদেশে সাধারণত হাই কনফিগাশেনের হালকা বাইকগুলো পাওয়া যায় না । যেসব বাইক বিদেশে পাওয়া যায় সেগুলো অনেক বেশী হর্সপাওয়ারের । অত্যাধুনিক টায়ারগুলো বর্তমানে অসম্ভব রকমের গতি সামলানোর জন্যই প্রস্তুত হয়ে আসে । এগুলো অত্যান্ত তাপেও এর স্ট্যাবিলিটি ধরে রাখতে পারে । কিন্তু , ঠান্ডা এবং বর্ষার সময় একটা হালকা বাইক অনেক বিপদজনক । কারণ , এগুলো ব্রেকিং এর সময় যদি রোড ভেজা তাকে তাহলে যেকোন সময় স্লিপ করে আপনাকে বিপদে ফেলতে পারে । এইসময় হালকা বাইকগুলো সাধারণত রাইডিং এর অনুপুযুক্ত হয়ে পড়ে ।

খরচ একটু বেশীই হয়

একটা হালকা বাইকের অসুবিধাগুলোর ভেতর অন্যতম প্রধান হল এর পেছনে অত্যান্ত বেশী খরচ । আমরা দেখতে পাই যে প্রচন্ড হর্সপাওয়ার থাকার কারণে এটার জ্বালানী খরচও অত্যান্ত বেশী । আর একটা হালকা বাইকের পারফরমেন্স ধরে রাখার কারণে এর টায়ারগুলো প্রতি ২০০০ কিলোমিটারে একবার চেঞ্জ করার জন্য সাজেস্ট করা হয় । এছাড়াও বাইকগুলোর অন্যান্য পার্টসগুলো নষ্ট হলে এগুলো যেমন সব স্থানে পাওয়া যায় না , তেমনই এগুলো বেশ দামীও ।

হালকা বাইক কিন্তু রেসিং বাইক না

হালকা বাইক নিয়ে আপনি যেকোন রেসে যেতে পারেন এবং জিততেও পারেন । কিন্তু এই বাইকগুলো মূলত রেসিং বাইক না । একটা রেসিং বাইকের মত কন্ট্রোলিং , কমফোর্ট এটা দিতে পারে না । একটা রেসিং বাইক যেকোন ধরণের মানুষের জন্য পারফেক্ট । কিন্তু একটা হুলকা বাইক সেটা নয় । কারণ , সব হাইটের মানুষরা এটা রাইড করে কমফোর্ট ফিল করতে পারে না । এ্ই বাইকগুলো সাধারণত বেশ উচু হয়ে থাকে যেটা এর রাইডিং কে অনেকটা প্যাড়াদায়ক করে তোলে । 

কন্ট্রোলিং এ দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন কিন্তু এক্সেলেরেশনে নয়

আপনি যদি আবার বাইক কন্ট্রোলিং এর দিকে যান , তাহলে এটাই হবে আপনার সবথেকে ভাল টিউটর । কারণ , হালকা বাইকগুলো মূলত খুব একটা ভাল কন্ট্রোলিং এর জন্য তৈরী হয় না । আর এ্ই কারণেই আপনি যদি এই বাইকগুলো ইউজ করেন তাহলে আপনি বাইক কন্ট্রোলিং এর মাষ্টার হয়ে উঠতে পারবেন । এই বাইকগুলো আপনি একবার ভালভাবে বুঝতে পারলে অন্য যেকোন বাইক কন্ট্রোলিং আপনার কাছে ডালভাত বলে মনে হবে । কিন্তু বিপরীত কথা চলে আসে স্পীড আপের ক্ষেত্রে । কারণ , এই বাইকগুলো নিয়ে এক্সেলেরেশন করলে আপনার কোন কষ্টই হবে না । এগুলো যেকোন সময় যেকোন গিয়ারে সমানভাবে এক্সেলেরেট করতে পারে । তাই , অন্যান্য বাইক থাকলে আপনি বাইক দ্রুত এক্সেলেরেট করা বা স্পীড আপ করার যে শিক্ষাটা পেতেন , সেটা আপনি এই বাইকে পাবেন না ।

সবার জন্য হালকা বাইক নয়

আপনার সবথেকে বড় ভুল হবে আপনি যদি একজন ভাল রাইডার হবার আগেই প্রথম বাইক হিসেবে একটা হালকা বাইক বেছে নেন । কারণ , এই বাইকগুলোর কন্ট্রোলিং বেশ কঠিন হবার কারণে আপনি যেকোন সময় বিপদে পড়তে পারেন এবং এক্সিডেন্টের সম্মুখীন হতে পারেন । আপনার সব স্কিলগুলো জাস্ট বাইকের পাওয়ার কন্ট্রোলিং এর দিকে নিয়ে যেতে হবে । তাই , হালকা বাইকগুলো নতুনদের জন্য মোটেও পারফেক্ট না ।

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: সকল লেখা সুরক্ষিত !!