হিরো হাংক এর মালিকানা রিভিউ লিখেছেন শিমুল

আপনিও আমাদেরকে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠাতে পারেন। আমাদের ব্লগের মাধ্যেম আপনার বাইকের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করুন! আপনি বাংলা বা ইংরেজি, যেকোন ভাষাতেই আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ লিখতে পারবেন। মালিকানা রিভিউ কিভাবে লিখবেন তা জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন এবং তারপরে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠিয়ে দিন articles.bikebd@gmail.com - এই ইমেইল এড্রেসে। আমি কায়সার, নাটোর সদর থেকে..  বেশ কিছুদিন ধরে আমি হিরো হাংক বাইকটি ব্যবহার করছি । এতোদিন মোট ১২,৫০০ কিলোমিটার চালানো হয়েছে, তাই সকলের সাথে আমার হিরো হাংক বাইকটি নিয়ে আমার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করতে চাই। আমি  প্রথম বাইক চালানো শিখি 2004 সালে বাবার xingfu 125…

Review Overview

User Rating: 4.88 ( 2 votes)

আপনিও আমাদেরকে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠাতে পারেন। আমাদের ব্লগের মাধ্যেম আপনার বাইকের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করুন! আপনি বাংলা বা ইংরেজি, যেকোন ভাষাতেই আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ লিখতে পারবেন। মালিকানা রিভিউ কিভাবে লিখবেন তা জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন এবং তারপরে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠিয়ে দিন articles.bikebd@gmail.com – এই ইমেইল এড্রেসে। আমি কায়সার, নাটোর সদর থেকে..  বেশ কিছুদিন ধরে আমি হিরো হাংক বাইকটি ব্যবহার করছি । এতোদিন মোট ১২,৫০০ কিলোমিটার চালানো হয়েছে, তাই সকলের সাথে আমার হিরো হাংক বাইকটি নিয়ে আমার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করতে চাই।

হিরো হাংক

আমি  প্রথম বাইক চালানো শিখি 2004 সালে বাবার xingfu 125 দিয়ে.. তখন থেকেই বাইকের নেশা চেপে বসে.. বাসায় বাবা বড় ভাইএর বিভিন্ন বাইক চালিয়েছি কিন্তু নিজের ব্যক্তিগত বাইক আর হয়ে উঠছিলো না কারন বাবা বলতেন আমার বাইক আছে তোমার ভাইয়ের বাইক আছে সেগুলই চালাও.. কিন্তু মনের ভিতর একটা আশা থেকেই যায় নিজের একটা বাইকের.. নানা জল্পনা কল্পনা এর মাঝে নিজেই কিছু টাকা জোগার করে ফেল্লাম আমার ফ্যমিলি থেকে বাকিটা দিলো.. সপ্ন পুরনের পথে.. কোন বাইক নিবো?

hero hunk mileage

এতদিনের সপ্ন বলে কথা সিদ্ধান্ত নিতে হবে বুঝে শুনে.. পালসার নিতে বললেন সবাই কিন্তু আমার পছন্দ না.. অনেক কমন কোন আকর্ষন নেই.. এপাচি আর টি আর চালিয়ে দেখলাম প্রচন্ড ভাইব্রেশন আরামদায়ক মনে হলো না.. কি করা যায়? অবশেষে সব অভিজ্ঞ ভাইদের কাছে পরামর্শ নিয়ে হাঙ্ক নেবার সিদ্ধান্ত নিলাম.. কিন্তু সমস্যা হলো সবাই বললো হিরো হোন্ডা হাঙ্ক ভালো ছিল হিরো হাঙ্ক নাকি ভালো না.. যাই হোক ইতি পুর্বে ভাইয়ার হিরো হোণ্ডা সিবি জেড এক্সট্রিম 57,000 কিমি চালিয়েছি কোণ সমস্যা ছারাই.. মুলত সেখান থেকেই হিরো হোন্ডার প্রতি একটা আস্থা.. ইন্টার্নেট ঘাটাঘাটি করে হিরো হোন্ডা এবং হিরো এর আসল পার্থক্য ধরার চেষ্টা করলাম.. মুলত বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করার ক্ষেত্রে হোন্ডার সাথে হিরোর মতবিরোধ হয় সেখান থেকে হিরোই নিজে থেকেই সরে আসে.. দীর্ঘ ৩৫ বছর একসাথে কাজ করার পর হিরো এখন নিজেই সয়ংসম্পুর্ন.. সিধান্ত অটল হিরো হাঙ্ক নিবো যে যাই বলুক সব থেকে বড় কথা পাচ বছর অথবা 70,000 কিমি ইঞ্জিন ওয়ারেন্টি আর কে দিবে?

hero hunk top speed

13-04-2016 সন্ধ্যায় আব্বুকে নিয়ে বাইক কিনতে গেলাম সেই মুহুর্তটা সত্যি অসাধারন.. সবুজ লাল সাদা আর কালো রঙ্গের হাঙ্ক ছিলো আমি ডাবল ডিস্কের কালোটাই পছন্দ করলাম.. বাইক যখন রেডি করছিলো তখন যে কেমন আনন্দ হচ্ছিলো বোঝানো যাবে না.. বাইক এ আব্বুকে চড়িয়ে বাসায় আসলাম… প্রথম মবিল ড্রেইন দিয়েছি ২০০ কিমি পর.. তারপর ৫০০ কিমি এবং পরে ১০০০ কিমি পর পর ইঞ্জিন অয়েল ড্রেইন দিয়েছি.. প্রথম ৩০০০ কিমি আমি ব্রেক ইন প্রিয়ড মেনে চলেছি কখনো তিন জন উঠাই নি অথবা ৫০ এর বেশি গতি তুলিনি..

hero hunk price in bangladesh 2017

হিরো এর ব্রেক ইন প্রিয়ড হিরো হোন্ডার থেকে কিছুটা লম্বা কারন এর পিষ্টন একটু টাইট থাকে যা সঠিক ব্রেক ইন এ বাইকের দীর্ঘ ইঞ্জিন সুরক্ষা নিশ্চিত করে.. ব্রেকইন প্রিয়ডের পর যখন সার্ভিস এ রোটর ফিল্টার ক্লিন করে দিল আমি নিজেই অবাক হয়ে গেলাম এতো স্মুথ কিভাবে সম্ভব?? এর সাসপেন্সন অসাধারন সিটিং পসিশন খুবই আরামদায়ক.. আমি সবসময় এর ইঞ্জিন অয়েলের গ্রেড মেইন্টেইন করেছি যা কিনা 10W30. বাজারে এই গ্রেডের বিভিন্ন্য ওয়েল পাওয়া যায় কিন্তু আমি বরাবর ই soil supra 10w30 ব্যবহার করি এটা অন্য সকল ওয়েলের চেয়ে হাঙ্কে ভালো পারফর্মেন্স দিয়েছে.. আমি লিটারে 45-48 মাইলেজ পাচ্ছি যাতে আমি খুবই সন্তুষ্ট….বর্তমানে 12500 কিমি রানিং…

hero hunk price in bd

হিরো হাংক এর সুবিধা গুলোঃ

১. ওজনে ভারী হওয়াতে কন্ট্রোলিং ভালো.

২. শক্তিশালী ইঞ্জিন.

৩. ইঞ্জিনের শব্দ খুব কম এবং কোন ভাইব্রেশন নেই.

৪. রিয়ার ডিস্ক ব্রেকের চমৎকার কর্মক্ষমতা.

৫. বাল্কি ফুয়েল ট্যাংক.

৬. কর্নারিং অনেক সুন্দর.

৭. আরামদায়ক সিট.

হিরো হাংক এর অসুবিধা গুলোঃ

১. প্রথম এবং দিতীয় গিয়ারে রেশিও কম.

২. পিছনের চাকা তুলনামুলক চিকন এবং স্কিড প্রবন.

৩. ওজনে ভারী তাই বাইক নারাচারা করতে একটু কষ্ট হয়..

৪. এসি হেডলাইট যা পিকআপের সাথে আলো কম বেশি হয়.

hero honda hunk top speed

সমস্যা গুলো সমাধানে আমি পিছনের টায়ার চেঞ্জ করে CEAT gripp 100-90-18 লাগিয়েছি.. হেড লাইট ডিসি করে 6 bed LED ব্যবহার করছি এতে কোন ব্যটারি প্রব্লেম ফেস করি নাই…

স্টক হ্যন্ডেল চেঞ্জ করে আমি পালসার ug3 এর হ্যন্ডেল ব্যবহার করছি এটা কিছুটা স্পোর্টি করে রাইড পসিশন…

hero hunk review

কোন সমস্যা ছাড়াই ১ বছর এবং ১২৫০০ কিমি পার করে ফেললাম আমার প্রিয় হাঙ্কের সাথে।

যারা দীর্ঘ সময় বাইক রাইড করেন অথবা দীর্ঘদিন একটি বাইক ব্যবহার করতে চান, হিরো হাঙ্ক তাদের জন্য সত্যি একটা অসাধারন প্যকেজ।

লেখকঃ শিমুল কায়সার

 

আপনিও আমাদেরকে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠাতে পারেন। আমাদের ব্লগের মাধ্যেম আপনার বাইকের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করুন! আপনি বাংলা বা ইংরেজি, যেকোন ভাষাতেই আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ লিখতে পারবেন। মালিকানা রিভিউ কিভাবে লিখবেন তা জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন এবং তারপরে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠিয়ে দিন articles.bikebd@gmail.com – এই ইমেইল এড্রেসে।

About আহমেদ স্বজন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: সকল লেখা সুরক্ষিত !!