হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন এখন বাংলাদেশে

বাংলাদেশে চলে এসেছে হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন। ইআরএস গ্লোবাল গত ২৯ জুন ইন্দোনেশিয়ান এই ভার্সনটি বাজারে ছেড়েছে। প্রসঙ্গত বলে রাখি, এই ইআরএস গ্লোবালই কিন্তু এর আগে আমাদেরকে ইয়ামাহা এম স্ল্যাজ এনে দিয়েছে, যেটা এ মুহূর্তে দেশের অন্যতম সেরা একটি বাইক। তারা অল্প কয়েকটি হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন বাজারে ছেড়েছে। পাশাপাশি এক কালারের সিবিআর ও তারা নিয়ে এসেছে, যদিও এ মুহূর্তে তাদের কাছে শুধু সাদা কালারটিই পাওয়া যাবে। বাংলাদেশে রেপসল এডিশনের ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন আদতে সিবিআর এর সাধারণ ভার্সন আর রেপসল এডিশনের মাঝে তেমন কোনো বিশেষ পার্থক্য নেই। রেপসলের কালার আর রিম’টাই শুধু আলাদা, যেমনটা মটোজিপি’র ক্ষেত্রে হয়ে…

Review Overview

User Rating: 4.7 ( 1 votes)

বাংলাদেশে চলে এসেছে হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন। ইআরএস গ্লোবাল গত ২৯ জুন ইন্দোনেশিয়ান এই ভার্সনটি বাজারে ছেড়েছে। প্রসঙ্গত বলে রাখি, এই ইআরএস গ্লোবালই কিন্তু এর আগে আমাদেরকে ইয়ামাহা এম স্ল্যাজ এনে দিয়েছে, যেটা এ মুহূর্তে দেশের অন্যতম সেরা একটি বাইক।

বাংলাদেশে হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশনতারা অল্প কয়েকটি হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন বাজারে ছেড়েছে। পাশাপাশি এক কালারের সিবিআর ও তারা নিয়ে এসেছে, যদিও এ মুহূর্তে তাদের কাছে শুধু সাদা কালারটিই পাওয়া যাবে।

বাংলাদেশে রেপসল এডিশনের ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

আদতে সিবিআর এর সাধারণ ভার্সন আর রেপসল এডিশনের মাঝে তেমন কোনো বিশেষ পার্থক্য নেই। রেপসলের কালার আর রিম’টাই শুধু আলাদা, যেমনটা মটোজিপি’র ক্ষেত্রে হয়ে থাকে আর কি। আপনি বাইকটির চেয়ে বরং এর মর্যাদার জন্যই এটা কিনবেন!

হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন বাজারে এসেছেরেপসলের ইঞ্জিনটাও ওই একই, ১৫০ সিসি ওয়াটার কুলড, ৬ গিয়ারের। এর সর্বোচ্চ ক্ষমতা ১৬.৯ বিএইচপি ও টর্ক ১৩.৭ নিউটন মিটার। তবে এর ইন্সট্রুমেন্ট প্যানেলটা নতুন ও উন্নতমানের।

এই বাইকের ফিচারগুলো হলো

  • উন্নততর ইঞ্জিন, যেটার সর্বোচ্চ ক্ষমতা কম তবে টর্ক বেশি।
  • এর সর্বোচ্চ ক্ষমতা ১৬.৯ বিএইচপি টর্ক ১৩.৭ নিউটন মিটার
  • নতুন ডুয়েল হেডলাইট, যা দেখতে আরো বেশি আগ্রাসী।
  • স্প্লিট সিট এবং আর১৫ ভি২ এর মতো উঁচু করা।
  • সুইং আর্মের পরিমাণ ১৩ মিমি।
  • ওয়েট ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য ইঞ্জিন সামনের দিকে ৪০ ডিগ্রি টিল্ট করা হয়েছে।
  • উন্নততর অ্যারোডাইনামিক, সর্বোচ্চ গতি ও জ্বালানি সাশ্রয়ী করে তুলতে এর সামনের ফেয়ারিং কিছুটা নিচু রাখা হয়েছে।
  • সম্পূর্ণ নতুন ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট প্যানেল।
  • এলইডি হেডলাইট।
  • কম্প্রেশন রেশিও ১১.৩:১।
  • বাইকটির ওজন ১৩৫ কেজি।
  • ট্যাঙ্কের জ্বালানি ধারণ ক্ষমতা কমিয়ে ১২ লিটার করা হয়েছে।
  • নতুন অ্যালয় হুইল।
  • নতুন এক্সজস্ট সিস্টেম।
  • নতুন ও উন্নত মানের সুইচ।
  • সিটিং পজিশনকে আরো বেশি স্পোর্টিং করার জন্য হ্যান্ডেলবার নিচু করা হয়েছে।
  • সাসপেনশন পুরনোটার মতোই রাখা হয়েছে।
  • এবারও ইঞ্জিন কিল সুইচ দেয়নি এটাতে!
  • নতুন এডিশনের কালার আগের চেয়েও গর্জিয়াস!

>> বাংলাদেশে হোন্ডা সিবিআর১৫০আর রেপসল এডিশনের দাম ও শোরুম দেখতে ক্লিক করুন

হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশন ইঞ্জিনহোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ এর স্পেসিফিকেশন

টাইপ নতুন হোন্ডা সিবিআর১৫০আর
আয়তন
দৈর্ঘ্য x প্রস্থ x উচ্চতা ১,৯৮৩ x ৬৯৪ x ১,০৩৮ মিমি
হুইল অ্যাক্সিসের দূরত্ব ১,৩১১ মিমি
ভূমি থেকে সর্বনিম্ন উচ্চতা ১৬৬ মিমি
শুকনো ওজন ১৩৫ কেজি
জ্বালানি ধারণ ক্ষমতা ১২ লিটার
ফ্রেম
ফ্রেম ডায়মন্ড (ট্রাস) ফ্রেম
সামনের সাসপেনশন টেলিস্কোপিক
পিছনের সাসপেনশন সিঙ্গেল সুইং আর্ম সাসপেনশন সিস্টেম (প্রো-লিঙ্ক)
সামনের টায়ার সাইজ ১০০/৮০-১৭ ৫২পি (টিউবলেস)
পিছনের টায়ার সাইজ ১৩০/৭০-১৭ ৬২পি (টিউবলেস)
সামনের ব্রেক হাইড্রলিক ডিস্ক
পিছনের ব্রেক হাইড্রলিক ডিস্ক
মেশিন
ইঞ্জিন ৪-স্ট্রোক ডিওএইচসি ৪-ভাল্ব
ক্লাস ১৫০ সিসি
ডিসপ্লেসমেন্ট ১৪৯.১৬ সিসি
বোর x স্ট্রোক ৫৭.৩ x ৫৭.৭ মিমি
কম্প্রেশন রেশিও ১১.৩:১
সর্বোচ্চ ক্ষমতা ১২.৬ কিলোওয়াট (১৭.১ পিএস/৯০০০ আরপিএম)
সর্বোচ্চ টর্ক ১৩.৭ নিউটন মিটার/ ৭০০০ আরপিএম
ইঞ্জিন অয়েল ধারণ ক্ষমতা ১.১
ক্লাচ টাইপ ওয়েট
ট্রান্সমিশন ম্যানুয়াল, ৬ স্পিড
গিয়ার শিফট প্যাটার্ন ১-নিউট্রাল-২-৩-৪-৫-৬
স্টার্ট ইলেকট্রিক
ব্যাটারি টাইপ এমএফ ওয়েট ১২ ভোল্ট ৫ অ্যাম্পিয়ার আওয়ার
প্লাগ এনজিকে এমআর৯সি-৯এন অথবা এনডি ইউ২৭ইপিআর-এন৯
ইগনিশন সম্পূর্ণ ট্রানজিস্টরাইজড

হোন্ডা সিবিআর১৫০আর ২০১৬ রেপসল এডিশনহোন্ডা সিবিআর১৫০আর (২০১৬) ইন্দোনেশিয়ান ভার্সন সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন :

ইআরএস গ্লোবাল

বাসা#৩০০ বি, রোড# ১৪এ, ব্লক#এ

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ঢাকা।

হটলাইন : ০১৯৩০ ৭৭৭ ১১১, ০১৭৮৯ ৮৮ ১১ ২২

আর্টিকেলটি পূর্বে ইংরেজিতে প্রকাশ করা হয়েছিলো।

About মাহামুদ সেতু

হ্যালো রাইডারস, আমি মাহামুদ সেতু। থাকি রাজশাহীতে, পড়াশোনাও রাবি’তে। যদিও আমার নিজস্ব কোনো বাইক নেই, তারপরও আমি কিন্তু বাইকের ব্যাপারে পাগল। এক্ষেত্রে আমাকে ‘চন্দ্রাহত’ও বলতে পারেন, মানে ওই দূর থেকে চাঁদের (আমার ক্ষেত্রে বাইক) প্রেমে পাগল হয় যারা, তারা আর কি। যাই হোক, মূল কথায় আসি। গত দুই বছর ধরেই আমি বাইকবিডি.কমের নিয়মিত পাঠক। এখান থেকেই আমি বাইক সম্পর্কে আমার জ্ঞানতৃষ্ণা নিবারণ করেছি। ব্লগের সবগুলো লেখাই একাধিকবার পড়েছি। এখানেই জানতে পারলাম বাইক মোডিফিকেশন সম্পর্কে। শেষমেশ এখন তো সিদ্ধান্তই নিয়ে ফেলেছি, বাইক নিয়েই কাজ করবো। মানে, বাইক মোডিফিকেশনটাকেই পেশা হিসেবে নিতে চাচ্ছি। জানি কাজটা কঠিন, তারপরও আমি আশাবদী। আমার জন্য দোয়া করবেন। অবশ্য বাইক মোডিফিকেশন নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী হওয়ার পিছনে আরেকটি কারণ রয়েছে। দেশে এতো এতো সুন্দর, দ্রুতগতির ও ভালো বাইক (বাংলাদেশে আইনত যার সর্বোচ্চ সীমা ১৫০সিসি) আছে, অথচ আমার পছন্দ হোন্ডা সিজি ১২৫। আমার খুবই ইচ্ছা এই ক্ল্যাসিক বাইকটি কিনে নিজের হাতে মোডিফিকেশন করার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Sign up to our newsletter!


error: সকল লেখা সুরক্ষিত !!