রানার মোটরবাইকের নতুন অফার

অ্যাটলাস বাংলাদেশ

বিগত কয়েক বছরে অ্যাটলাস বাংলাদেশ  (Atlas Bangladeshএর অনেক উন্নতি হয়েছে এবং এ সবকিছু সম্ভব হয়েছে বিভিন্ন বিশ্বখ্যাত কোম্পানির মাধ্যমে যারা বাংলাদেশকে বিশ্বদরবারে এর নাম তুলে ধরতে সাহায্য করেছে। বর্তমানে প্রত্যেক কোম্পানিই তাদের কোম্পানিকে সেরা করার প্রাণান্ত চেষ্টা করে যাচ্ছে। এ ধরনের  কোম্পানিগুলোর মধ্যে অ্যাটলাস বাংলাদেশ  হল সে রকমই একটি উন্নয়নশীল কোম্পানি । এই কোম্পানিটি ১৯৬৬ সালে সম্পূর্ণ বেসরকারী ব্যবস্থাপনায় পশ্চিম পাকিস্তানের কিছু উদ্যোক্তার  মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

atlas bangladesh

তাই আমরা দেখতে পাচ্ছি যে অ্যাটলাস বাংলাদেশ  আসলে একটি অনেক পুরানো কোম্পানি এবং এর কর্মীদের কঠোর পরিশ্রমের কারণে আজকে ২০১২ সালে এর নাম সবাই জানে । ১৯৭২ সালে এটা জাতীয়করণ করা হয় এবং এটা বাংলাদেশ স্টিল এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশন বা বিএসইসি এর ব্যবস্থাপনায় ছেড়ে দেয়া হয় । পরবর্তীতে ১৯৮৭ সালে একে পাবলিক লিমিটেড কোম্পানিতে পরিণত করা হয় যার ৪৯ ভাগ শেয়ার সাধারন জনগণের মধ্যে বিক্রি করে দেয়া হয় এবং ৫১ ভাগ শেয়ার বিএসইসি-র হাতে রাখা হয় । 

অ্যাটলাস বাংলাদেশ  -এর অনুমোদিত মূলধন হল ১০০ কোটি টাকা এবং এর পরিশোধিত মূলধন হল ২৩.৭০ কোটি টাকা । তারা ১৯৬৬-২০১২ পর্যন্ত কি পরিমাণ অর্থ আয় করেছে তা আমরা একবার দেখে নিতে পারি ।  কোম্পানিটি বেশকিছু কৌশল মেনে চলে যেমন বর্তমানে তাদের যে উৎপাদন পদ্ধতি রয়েছে সেটিকে তারা সম্পূর্ণ আধুনিক ও স্বনিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থায় পরিণত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ ভবিষ্যতে তাদের মোটরসাইকেলের যন্ত্রাংশ তৈরীর পরিকল্পনা রয়েছে । তাদের সারা বাংলাদেশব্যাপী ডিলার রয়েছে । যে সকল জায়গায় তাদের ডিলার রয়েছে সেগুলো হল-

 *ঢাকা

*ময়মনসিংহ

*জয়পুরহাট

*সিলেট

*খুলনা

*সাতক্ষীরা

*কুষ্টিয়া

*বগুড়া

*রাজশাহী

*নওগাঁ

*ঠাকুরগাঁও

*নবাবগঞ্জ

*চুয়াডাঙ্গা

*রংপুর

*পাবনা

*নোয়াখালী

*কিশোরগঞ্জ

*মৌলভীবাজার

*মাগুরা

*টাঙ্গাইল

*মানিকগঞ্জ

*কুমিল্লা

*গাজীপুর

*যশোর

*ব্রাহ্মনবাড়িয়া

*জয়পুরহাট

*দিনাজপুর

*ফরিদপুর

*বরিশাল

*নরসিংদী

*হবিগঞ্জ

*কক্সবাজার

*চাঁদপুর

*ভোলা

*লালমনিরহাট

*গোপালগঞ্জ

*নেত্রকোনা

*পঞ্চগড়

*নাটোর

*মেহেরপুর

*সিরাজগঞ্জ

*কুড়িগ্রাম

*ঝিনায়দাহ

*নীলফামারী

*শ্রীমঙ্গল

*খাগড়াছড়ি

*মাদারীপুর

*নড়াইল ও শেরপুর ।

 এ কোম্পানিটি পরিচালিত হয় সরকার নিযুক্ত পরিচালক ও শেয়ার হোল্ডারদের প্রতিনিধি দ্বারাঃ

অনুমোদিত মূলধনঃ                                   ২০০ মিলিয়ন টাকা

পরিশোধিত মূলধনঃ                                   ১৩০ মিলিয়ন টাকা

শেয়ারের ধরনঃ                                         ৫১ ভাগ সরকারী

                                                          ৪৯ ভাগ বেসরকারি

মোট ভূমির পরিমানঃ                                 ৩.৯০ হেক্টর বা ৯.৬৪ একর

মোট আয়তনঃ                                        ১১,৩৩২ স্কয়ার মিটার বা ২.৮০ একর 

খালি জায়গাঃ                                           ২৭,৬৮০ স্কয়ার মিটার  বা ৬.৮৪ একর

পরিচালনা পর্ষদের সদস্যঃ  ৯ জন (৫ জন সরকারী ও ৪ শেয়ার হোল্ডারদের থেকে)

পরস্পরিক সহযোগিতামূলক চুক্তিঃ  হোন্ডার সাথে

পণ্যঃ   বিভিন্ন বিশ্বখ্যাত কোম্পানি যেমন হোন্ডা ও হিরো হোন্ডা এর বিভিন্ন                           

              মডেলের মোটরসাইকেল,তিনচাকার মোটরের রিকশা ( মিশুক) ।

অ্যাটলাস বাংলাদেশ লিমিটেড -এর জনশক্তিঃ

  কর্মকর্তা                        সাধারনঃ                    ২৪ জন

                                   টেকনিক্যালঃ               ১৩ জন

                                   অ্যাকাউন্ট ক্যাডারঃ        ০৬ জন

 মোট                                                           ৪৩ জন

স্টাফঃ                      টেকনিক্যাল-            ১১ জন

                             নন-টেকনিক্যাল-      ৬২ জন

                                    মোট              ৭৩ জন

 

কর্মীঃ                                        দক্ষঃ                  ৭৯ জন

                                              আধা-দক্ষঃ            ৪৮ জন

                                              মোট                    ১২৭ জন

অ্যাটলাস বাংলাদেশ লিমিটেড- এর মোট জনশক্তি ২৪৩ জন

এই কোম্পানির কিছু পণ্যের তালিকা নিচে দেয়া হলঃ

১.সিবিজেড এক্সট্রিম ডাবল ডিস্ক ১৫০ সিসি

২.সিবিজেড এক্সট্রিম সিঙ্গেল ডিস্ক ১৫০ সিসি

৩.সিডি ডিলাক্স ১০০ সিসি ননসেলফ

৪.সিডি ডিলাক্স সেলফ অ্যালয়  ১০০ সিসি

৫. সিডি ডাউন ১০০ সিসি

৬. সিডি ৮০ সিসি

৭. সিজি ১২৫ সিসি

৮. গ্ল্যমার হাইড্রো ১২৫ সিসি

৯. হাঙ্ক ডাবল ডিস্ক ১৫০ সিসি

১০. হাঙ্ক সিঙ্গেল ডিস্ক ১৫০ সিসি

১১.প্যাশন প্রো ডিজি ১০০ সিসি

১২. প্লেজার ১০০ সিসি

১৩. স্প্লেন্ডর প্রো ১০০ সিসি

১৪. স্প্লেন্ডর + অ্যালয় ১০০ সিসি

১৫. স্প্লেন্ডর এনএক্সজি ১০০ সিসি

১৬. স্প্লেন্ডর + স্পোক ১০০ সিসি

১৭.  সুপার স্প্লেন্ডর ১০০ সিসি

আমি এই বাইকগুলোর মধ্য থেকে একটি বাইক সম্পর্কে বর্ণনা করছি যার ফলে আপনি এ কোম্পানির অন্যান্য বাইকগুলো সম্পর্কেও ধারণা পাবেন । প্রথমেই আমি প্যাশন প্রো সম্পর্কে আলোচনা করবো।

 BLACK-WITH-SPORTS-RED

*এতে রয়েছে ডিজিটাল-অ্যানালগ কম্বো মিটার

*আর রয়েছে এয়ার কুল্ড ইঞ্জিন এবং এটা ১০৯.১ সিসি ক্ষমতার

*দৈর্ঘ্য ২০০৫

*প্রস্থ ৭৬৫

*উচ্চতা ১১৫

আমি এখানে অত্যন্ত সংক্ষেপে বর্ণনা করেছি আশা করি আপনারা বুঝতে পারবেন এটি আসলে একটি কত ভালো বাইক !

এটা সত্যিই গর্ব করার মত ব্যাপার যে আমরাও অন্যান্য দেশ হতে খুব বেশি পিছিয়ে নেই । অ্যাটলাস বাংলাদেশ লিমিটেড- কে আন্তরিক ধন্যবাদ কারণ তাদের কারণেই আমরা এ বাইকগুলো বাংলাদেশের রাস্তায় চালানোর সুযোগ পাচ্ছি। তাদের এ জিনিসটাও বুঝতে হবে যে তাদের ক্রেতারাই তাদের সবচেয়ে বড় শক্তি । তাই আপনি যদি কখনো স্টাইলিস মোটরসাইকেল কিনতে চান তাহলে আপনি অ্যাটলাস বাংলাদেশ  লিমিটেডের  সাথে যোগাযোগ করতে পারেন কেননা তারা ছড়িয়ে আছে সারা  বাংলাদেশে। তাই বাংলাদেশের সকল অঞ্চলের লোকেরা তাদের সাথে সহজেই যোগাযোগ করতে পারবেন।

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*