রানার মোটরবাইকের নতুন অফার

Keeway Magnet 100cc টেস্ট রাইড রিভিউ – টিম বাইকবিডি

বাইকবিডিতে আমরা আপনাদের কাছে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছি যে কেন আমরা কমিউটিং সেগমেন্টের কোন বাই কেন টেস্ট রাইড কেন করছি না। আমরা কেন কমিউটিং সেগমেন্টের বাইক টেস্ট রাইড করছি না তার বড় কারন হচ্ছে বেশির ভাগ বাইকারদের ইন্টারেস্ট হচ্ছে ১৫০-১৬৫ সিসি মোটরসাইকেলের প্রতি। কিন্তু গত ৬ মাসে এই পরিস্থিতি অনেকটাই পালটে গিয়েছে। শুধু ট্র্যাফিক জ্যাম এড়িয়ে যাওয়ার জন্য নয় খরচ বাচাতে এবং সময় বাচাতে ১০০সিসির মোটরসাইকেলের কদর বেড়েছে। তাই আজ আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি টিম বাইকবিডি Keeway Magnet 100cc টেস্ট রাইড রিভিউ। Keeway Magnet 100cc টেস্ট রাইড রিভিউ – ইঞ্জিন Keeway Magnet 100cc মুলত কমিউটিং সেগমেন্টের বাইক। তাই এর…

Review Overview

User Rating: 4.9 ( 1 votes)

বাইকবিডিতে আমরা আপনাদের কাছে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছি যে কেন আমরা কমিউটিং সেগমেন্টের কোন বাই কেন টেস্ট রাইড কেন করছি না। আমরা কেন কমিউটিং সেগমেন্টের বাইক টেস্ট রাইড করছি না তার বড় কারন হচ্ছে বেশির ভাগ বাইকারদের ইন্টারেস্ট হচ্ছে ১৫০-১৬৫ সিসি মোটরসাইকেলের প্রতি। কিন্তু গত ৬ মাসে এই পরিস্থিতি অনেকটাই পালটে গিয়েছে। শুধু ট্র্যাফিক জ্যাম এড়িয়ে যাওয়ার জন্য নয় খরচ বাচাতে এবং সময় বাচাতে ১০০সিসির মোটরসাইকেলের কদর বেড়েছে। তাই আজ আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি টিম বাইকবিডি Keeway Magnet 100cc টেস্ট রাইড রিভিউ।

keeway magnet

Keeway Magnet 100cc টেস্ট রাইড রিভিউ – ইঞ্জিন

Keeway Magnet 100cc মুলত কমিউটিং সেগমেন্টের বাইক। তাই এর বাইকটির কাছ থেকে তেমন আশা না করাই ভালো। বাইকটির ইঞ্জিন হচ্ছে ১০০সিসির। যা ৭.৪ BHP তে ৭৫০০rpm এবং ৭.৬ NM এ ৫৫০০rpm ক্ষমতা সম্পন্ন। এটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এয়ার কুল্ড ইঞ্জিন। ইঞ্জিনে দুটি ভাল্ব যুক্ত আছে এবং সাথে ৪ স্পিড গিয়ার বক্স যুক্ত করা হয়েছে। বাইকটিতে সেলফ এবং কিক উভয় স্টার্ট রাখা হয়েছে।

কিওয়ে ম্যাগনেট বাইকটির ইঞ্জিনের সাউন্ড তেমন স্মুথ নয়। ইঞ্জিনে ভাইব্রেশন হয় ৫৫০০-৬০০০ rpm এ, যা অনেকের কাছে একটু খারাপ লাগতে পারে। তবে গিয়ার চেঞ্জ করে কোন সমস্যা হয় না। কিন্তু মাঝে মাঝে নিউট্রাল থেকে প্রথম গিয়ারে চেঞ্জ করতে একটু সমস্যা মনে হবে। তবে সময়ের সাথে ধীরে ধীরে এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

keeway magnet bd 100cc price

Keeway Magnet 100cc Review – Specification

Keeway Magnet 100cc টেস্ট রাইড রিভিউ – লুকস, ব্রেক ও সাসপেনশন

বাইকটির হেড লাইট হচ্ছে হ্যালোজন। পার্কিং লাইট গুলো চিন এর সাথে দেয়া হয়েছে যা বাইকটির লুকস কে আরো এগ্রেসিভ করে তুলেছে। বাইকটির কালার ডিজাইন অনেক সুন্দর করে ডিজাইন করা হয়েছে। লালের সাথে কালো হুইল এর সৌন্দর্য অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে।

Keeway Magnet 100cc এর সামনের দিকে লেগ গার্ড এবং পিলিয়ন সিটের পাশে সারি গার্ড দেয়া হয়েছে। পিলিয়ন এবং রাইডারের সিট অনেক বেশি কমফোর্টেবল। বাইকটি সাইজে ছোট এবং উচ্চাতায় কম। তাই কম উচ্চতার রাইডারা বাইকটি ভাল ভাবে রাইড করতে পারবে। আর পূর্ন বয়স্ক দুজন মানুষ খুব আরামেই রাইড করে পারবে।।

keeway magnet price

কিওয়ে ম্যাগনেটের ফুয়েল ট্যাঙ্ক পুরোপুরি স্টিলের তৈরি। এতে কোন প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়নি। যদিও ফুয়েল ট্যাঙ্কের উভয় পাশে বাতাস চলাচলের জন্য এয়ার স্কুপ দেয়া হয়েছে। যাতে ইঞ্জিনে বাতাস চলাচল করতে পারে এবং ইঞ্জিন ঠান্ডা থাকে। স্পিডোমিটারটি সেমি ডিজিটাল। এতে স্পিড কাউন্টার এবং RPM কাউন্টারের সাথে ডিজিটাল ফুয়েল গেজ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ওডোমিটার, ট্রিপ মিটার এবং ওর্য়ানিং লাইটস দেয়া হয়েছে। তবে ফুয়েল গেজ সব সময় আপনাকে সঠিক মাপ নাও দেখাতে পারে।

Click To See Keeway Superlight 150 Test Ride Review

Keeway Magnet 100cc বা কিওয়ের সবচেয়ে যে বিষয়টি খারাপ লেগেছে তা হলো তারা এখনো সেই পুরানো দিনের নেক লক ব্যবহার করছে তাদের বাইক গুলোতে। যা সিজি১২৫ এ ব্যবহৃত হতো। বাইকটি যদিও চাইনিজ তবে এর সুইচ গিয়ার গুলো অনেক মান সম্মত। বাইকটিতে সব ধরনের প্রয়োজনীয় সুইচ দেয়া আছে। পাস লাইট এবং ইঞ্জিন কিল সুইচ ও দেয়া হয়েছে।

keeway magnet bd price

বাইকের পিছনের দিকে পিলিয়নের জন্য গ্রেইব রেইল দেয়া আছে। তাছাড়া অতিরিক্ত পা-দানী এবং বাম দিকে সারি গার্ড দেয়া হয়েছে যাতে করে মহিলা পিলিয়ন বাম দিকে পা দিয়ে বসতে পারে। গিয়ার লিভার অনেক বেশি স্ট্যান্ডার্ড যা গিয়ার চেঞ্জের ক্ষেত্রে কমফোর্টেবল। যদি ক্লাচ সঠিকভাবে এডজাস্ট করা না হয় তবে আপনার গিয়ার চেঞ্জ করার ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা হতে পারে।

যদিও বাইকটির হুইল গুলো এলয় হুইল কিন্তু আরও ভালো হতো যদি কিওয়ে টিউবলেস টায়ার ব্যবহার করত। তবে এটা প্রায় অসম্ভব এই সেগমেন্টে এই দামে টিউবলেস টায়ার দেয়াটা একটু কষ্টকর। কিন্তু যদি কিওয়ে ভবিষ্যতে টিউবলেস টায়ার যুক্ত করে তবে কাস্টমারের জন্য এটা একটা বাড়তি ফিচার হিসেবে যুক্ত হবে।

keeway magnet bd price 100cc

টায়ারের প্রশস্ততা এই সেগমেন্টের জন্য স্ট্যান্ডার্ড। কারন এই ধরনের বাইকের ক্ষেত্রে অনেকেই মাইলেজ এর ব্যাপারে অনেক বেশি চিন্তিত থাকেন। এছাড়া এর এক্স হস্ট এমন ভাবে ডিজাইন করা যা বাইকটির লুকস এবং মোমেন্টাম দুটোই বাড়িয়ে দিয়েছে।

Keeway Magnet 100cc বাইকের সামনে এবং পেছনে ড্রাম ব্রেক ব্যবহার করা হয়েছে। যদিও আগের ভার্সনে তারা ডিস্ক ব্রেক ব্যবহার করেছে কিন্তু বর্তমানে শুধু ড্রাম ব্রেক। অন্য সকল ড্রাম ব্রেক বাইকের মত এই বাইকের ফ্রন্ট ব্রেক কিছুটা দুর্বল। কিন্তু রিয়ার ব্রেকর পারফর্মেন্স ভাল।

keeway magnet bangladesh

বাইকটির সাসপেনশন এর হচ্ছে ফ্রন্টে টেলিস্কোপিক এবং রিয়ার সাসপেনশন টেলিস্কোপিক ওয়েল স্প্রিং। যদিও ভাল রাস্তাতে সাসপেশন ভাল ফিডব্যাক দেয়। কিন্তু খারাপ বা ভাংগা রাস্তায় ভালো ফিড ব্যাক পাওয়া যায় না।

যেহেতু Keeway Magnet 100cc বাইকটি ছোট খাটো। তাই কম উচ্চতার বাইকারদের জন্য বাইকটি রাইড করার জন্য ভালো। এছাড়া ছোট খাটো হওয়ার কারনে এর কন্ট্রোলিং ও অনেক সহজ। যদিও হ্যান্ডেল বারটি বেশি প্রশস্ত নয়, তবুও আমার কাছে হ্যান্ডেল বারটি ভালো লেগেছে। ভারী ট্র্যাফিক জ্যাম বা ছোট ফাক এর মধ্য দিয়ে অনায়াসে বের হওয়া যায়। বাইকটির টার্নিং রেডিয়াস সিটি রাইডিং এর জন্য অনেক ভালো।

keeway magnet 100cc

Keeway Magnet 100cc রাইডিং অভিজ্ঞতাঃ

যেহেতু এই বাইকটি কমিউটার সেগমেন্টের বাইক তাই আপনি বাইকটি থেকে সেভাবে পারফর্মেন্স পাবেন না। যারা টপস্পিডের কথা ভাবছেন তাদের জন্য বলি, আমরা টপস্পিড পেয়েছি ৯৫ কিলো প্রতি ঘন্টায়। আর মাইলেজ সিটিতে পেয়েছি ৫২-৫৫ কিলো এবং হাইওয়েতে ৬০-৬৫ কিলো প্রতি লিটার। তবে রাইডিং এর উপর নির্ভর করে মাইলেজ কম বা বেশি হতে পারে।

Keeway Magnet 100cc এই বাইকটির মাইলেজ এরকম হওয়াড় কারন হচ্ছে, এই বাইকটিতে TPS( Throttle Positioning Sensor) প্রযুক্তি। যা এক প্রকার সেন্সর নির্ধারন করে দেয় থ্রটল কতটুকু টুইস্ট হবে এবং কার্বুরেটর থেকে কি পরিমান তেল যাবে। যদিও এটি EFI বা FI এর মত হাই টেক নয়। তবে কিওয়ের এই সেগমেন্টের যেসকল বাইক বর্তমানে রয়েছে তাদের সব গুলোতেই এই প্রযুক্তি দেয়া হয়েছে। যদিও এটা একটু কষ্ট সাধ্যা টিপিএস এবং টিপিএস ছাড়া বাইকের মধ্যে মাইলেজের পার্থক্য নির্ণয় করা।

keeway magnet 100 cc price

ভারী যানজটের মধ্যে বাইকটি ভালো ফিডব্যাক দেয়। যেহেতু বাইকটির টার্নি রেডিয়াস ভালো এবং ওজনে হালকা তাই বাইকটি কন্ট্রোলিং করাও খুব সহজ। যদিও আমি ডিস্ক ব্রেক অপশন মিস করেছি কিন্তু ড্রাম আমাকে ভাল ফিডব্যাক দিয়েছে। এর আগের ভার্সনটিতে ড্রাম ব্রেক ব্যবহার করা হয়েছে। যেহেতু তারা দাম কমানোর দিকে নজর দিয়েছে তাই তারা ডিস্ক ব্রেক দেয়নি।

Keeway Magnet 100cc বাইকটির কর্নারিং এবিলিটি দারুন। টায়ারের গ্রিপও ভালো। বর্ষা ও শুকনো অবস্থায় দুটি টায়ারই ভালো ফিডব্যাক দেয়। বাইকটি স্টাবল হওয়ার অন্যতম কারন হচ্ছে বাইকটির ওজন মাত্র ১১৭ কেজি।

keeway magnet 100cc bd price

রাইডিং কমফোর্ট এর দিক থেকে বাইকটি একটু পিছিয়ে আছে। কারন আপনি যদি সিটিতে প্রতি দিন ৫০-৬০ কিলো রাইড করতে চান তবে ফ্রন্ট সাসপেশন কে একটু উন্নত করতে হবে। তবে একা রাইড করার জন্য রিয়ার সাসপেনশনটি ভাল ফিডব্যাক দেয়।  এছাড়া বাইকটির রয়েছে ১৪ লিটার ফুয়েল ট্যাঙ্ক। যাতে করে আপনাকে তেলের জন্য বার বার থামএ না হয়।

হেড লাইট রাতের রাইডের জন্য ভাল, তবে লাইট ডিসি। দামের সাথে তুলনা করলে বাইকটির ব্লিড কোয়ালিটি বেশ ভালো। যদি টিউবলেস টায়ার ও ডিস্ক ব্রেক যুক্ত করা হতো তবে সেফটি আরো ভালো হতো কিন্তু দাম একটু বেড়ে যেতো।

keeway magnet price in india

Keeway Magnet 100cc বাইকের ইঞ্জিনের ভাইব্রেশন টের পাওয়া যায় যখন ৫৫০০-৬০০০আরপিএম এ বাইক থাকে। যা একটু হলেও বিরক্তিকর। কিন্তু তখন আপনার এটা খেয়াল রাখা দরকার যে একই সাথে কম দাম, লুকস, ব্লিড কোয়ালিটি এবং ভালো ইঞ্জিন একই সাথে পাওয়াটা একটু কঠিন।

Keeway Motorcycle Showroom In Bangladesh

Keeway Magnet 100cc বাইকের দাম মাত্র ৯২,৯০০/- টাকা। এর সাথে আপনি পাবেন ২ বছর বা ২০,০০০/- কিলো ইঞ্জিন ওয়ারেন্টি এবং ৪টি ফ্রি সার্ভিস। আর কালার অপশন এর ক্ষেত্রে লাল ও কালোর সংমিশ্রন এবং পুরো কালো কিনতে পারবেন। এছাড়া আপনি চাইলে কিস্তিতেও Keeway Magnet কিনতে পারবেন।

keeway magnet bangladeshi

আশা করছি আপনারা আমাদের এই আর্টিকেল থেকে Keeway Magnet 100cc বাইকটি সম্পর্কে একটি ভালো ধারনা পেয়েছেন। আমরা চেষ্টা করেছি আমাদের টেস্ট রাইড থেকে যতটুকু সম্ভব আপনাদের কাছে তুলে ধরার। যারা ঢাকা সিটির মধ্যে কমিউটিং করতে চান তারা এই বাইকটি নিতে পারেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*