TVS Apache RTR 150 নিয়ে আমার অভিজ্ঞতাঃ জুন

TVS Apache RTR 150 আমার মতে বাংলাদেশে সবচাইতে বিতর্কিত বাইক। মাঝে মাঝে ফেসবুকে দেখি এই বাইকের ওনাররা তর্কবিতক করছেন FZ S সিরিজ ওনারদের সাথে কি এমন আছে এই TVS Apache RTR 150 বাইকে? আমি গত মাসে TVS Apache RTR 150 নিয়েছি আর এর আগে তিন বৎসর চালিয়েছিলাম FZ 16 তার আগে দুই বৎসর ব্যাবহার করেছি Bajaj Pulsar 150. যাইহোক আজ আপনাদের সাথে TVS Apache RTR 150 এর অভিজ্ঞতা শেয়ার করবো।

tvs apache rtr ownership review

আমার কাছে TVS Apache RTR 150 এর সবচাইতে ভালো জিনিষ এটার ডিসপ্লে প্যানেল। অন্যান্য অনেক জরুরী জিনিষ ছাড়াও এটার মধ্যে আরও কিছু আছে যেমন ঘড়ি,টপ স্পীড রেকর্ড, ০ থেকে ৬০ কতো সেকেন্ডে তুলেছেন এর রেকর্ড। এই জিনিষগুলো কেনও অন্য বাইক অ্যাড করেনা এটা সত্যি আমার মাথায় আসেনা।

অনেক বাইকারদের দেখি ক্যামেরা অথবা মোবাইল ক্যামেরা ব্যাবহার করেন টপ স্পীড অথবা ০ টু ৬০ রেকর্ড করার জন্য যেটা আমি মনেকরি খুব রিস্কি যেকোনো সময় কোনও দুর্ঘটনা হতে পারে আমার পরিচিত একজন বাইকার বন্ধু তার ফেজার এর ড্যাশবোর্ড কেটে একটা ঘড়ি ফিট করেছেন যেটা এখন প্রায় সব বাইকে থাকে।

TVS Apache RTR 150 এর কিছু দুর্বল জিনিষের মধ্যে রয়েছে Front Suspension যেটা এই বাইকের সাথে একদম খাপ খায়না কারন যখন আপনি হার্ড ব্রেক করবেন তখন সব চাপ সামনের দিকে চলে আসে যেটা TVS Apache RTR 150 এর চিকন Telescopic Forks, 105 mm Stroke নিতে পারেনা আর পিছনের চাকা স্কিড করে। আমার মতে যারা TVS Apache RTR 150 ব্যাবহার করছেন তারা TVS Apache RTR 180 এর Front Suspension ব্যাবহার করতে পারেন যদি ইমপোর্ট করতে পারেন যেটা FZ সিরিজে ব্যাবহার হচ্ছে।

টি ভি এস অ্যাপাচি আর টি আর

TVS Apache RTR 150 এর কিছু ভালো জিনিষ এর মধ্যে ফুয়েল ট্যাঙ্ক ক্যাপাসিটি খুব কাজের সেটা টের পেলাম এই হরতাল আর অবরোধ এর মধ্যে। জরুরী একটা কাজে ঢাকা থেকে দিনাজপুর গিয়েছিলাম টোটাল ৭০০ কিলোমিটার আবার পরদিন ঢাকা চলে আসি। ১৬ লিটার তেল একবারিই নিয়েছিলাম ঢাকা থেকে যেটা ঢাকায় ব্যাক করার পরেও কিছু ছিল। আমার আগের FZ এ তেল ধরত ১২ লিটার আর Bajaj Pulsar 150 তে ১৫লিটার।

এখন আসি টপ স্পীডের কথায় অনেকেই অনেক কথা বলে কিন্তু আমার মতে TVS Apache RTR 150 এর টপ স্পীড ১৩২/১৩৪ এর বেশী উঠানো সম্ভব না আমি ১২৭ তুলেছিলাম এয়ারপোর্ট রোডে আর একটু হয়তো তুলতে পারতাম কিন্তু সামনে একটা গাড়ি এসে যাওয়ায় স্পীড কমিয়ে দিতে হয়েছিলো। Bajaj Pulsar 150 তে উঠিয়েছিলাম ১১৯ আর FZ 16 এ উঠিয়েছিলাম ১২৪।

আমার মনে হয় কোনও ১৫০/১৫৩ সিসির বাইক TVS Apache RTR 150 এর সাথে পারবে কারন স্পীড আর এক্সিলারেসন সত্যি ভালো এই বাইকের কিন্তু দুর্বল Front Suspension এর জন্য হার্ড ব্রেক এর কথাটা মাথায় না রাখলে কিন্তু সমস্যা।

এবার আসি ভাইব্রেসন এর কথায়। সত্যি বলতে কি TVS Apache RTR 150 এর চালানোর সময় একটা ভাইব্রেসন অনুভব হয় কিন্তু ৬০ এর উপরে গেলে ওই ভাইব্রেসন আর তেমন বুজতে পারিনা আর কিছু দিন চালানোর পর অভ্যাস হয়ে যায়।

TVS Apache RTR 150 নিয়ে প্রথম দিকে খুব টেনশনে ছিলাম লং ট্যুর নিয়ে কারন আমি লাস্ট কবে বাস সার্ভিস ব্যাবহার করেছি ঠিক মনে নেই। আগে যখন Bajaj Pulsar 150 চালাতাম তখন কোমরে আর পিঠের নীচে একটা হাল্কা ব্যাথা অনুভব করতাম কিন্তু FZ আর TVS Apache RTR 150 চালানোর পর কোনও ব্যাথা অনুভব হয়নাই।

আর একটা টেনশন কাজ করছিলো এটার ইঞ্জিন নিয়ে শুনেছিলাম এটা নাকি সেইরকম গরম হয় অথবা ইঞ্জিনের আওয়াজ নাকি চেঞ্জ হয়ে যায় লংট্যুরে। কি সমস্যা হতে পারে এটা পরীক্ষা করার জন্য ঘণ্টা দুয়েক একটানা চালিয়েছিলাম কিছু সময় ৯০ তে আর কিছু সময় ১০০ এর উপরে। আল্লাহর রহমতে কোনও প্রবেম হয়নাই আর যেহেতু হরতাল আর অবরোধ ছিল তাই ইচ্ছেমত পরীক্ষা করতে পেরেছিলাম। ঢাকা থেকে দিনাজপুর যেতে সময় লেগেছিল ৬ ঘণ্টার কিছু কম। গত সপ্তাহে দুইবার ঢাকা দিনাজপুর ঢাকা করেছি আর টেস্ট করেছি এই TVS Apache RTR 150।

present strike situation of bangladesh

TVS Apache RTR 150 এর পিছনের চাকা এমনিতে চিকন তারপর আবার এমন ডিজাইন যেটা অফ রোডে একদম বিড়াল। হরতাল আর অবরোধের মধ্যে যখন রাস্তার মাঝে গাছ ফেলা ছিল তখন অফ রোড ব্যাবহার করে বুজতে পারলাম এটার অবস্থা কতটা করুন।

রাস্তার ঢালু থেকে মেইন রাস্তায় উঠতে আমার খবর হয়ে গিয়েছিলো। খুব ভালো রাইডার না হলে TVS Apache RTR 150 নিয়ে অফ রোডে না যাওয়াই ভালো। কিছুটা নরম বালুর রাস্তাও মানে নদীর পাড় অথবা রাস্তার পাড় কিন্তু TVS Apache RTR 150 এর জন্য অফ রোড। সবচাইতে খারাপ লেগেছিল যখন আমার বন্ধুর Yamaha SS125 খুব সাবলীল ভাবে ওই একই পথদিয়ে গিয়েছিলো। নীচে দুইটি ছবি দিলাম কি টাইপের অফ রোড এর কথা বলেছি তার সম্পর্কে একটা আইডিয়া পাবেন।

জুন সাদিকুল্লাহ

বাংলাদেশের হরতাল পরিশ্তিতি

যাইহোক আমার কাছে মনে হয়েছে TVS Apache RTR 150 সিটিতে ব্যাবহার এর জন্য খুব ভালো বাইক তবে মাঝে মাঝে ট্যুর দিলেও ক্ষতি নেই। দাম, স্টাইল, গতি আর ফুয়েল সাশ্রয়ী খুব ভালো সমন্বয় এই TVS Apache RTR 150 যেটা বাঘ কিন্তু চিড়িয়াখানার বাঘ। অ্যাডে বলে এটা নাকি দুর্বল চিত্তের জন্য নয় আমি বলি এটা দুর্বল চিত্তের রাইডারের জন্য নয় কারন দক্ষ রাইডার না হলে এটাকে আপনি বনের বাঘ বানাতে পারবেন না।

জুন সাদিকুল্লাহ 

(ফেসবুক এ আমার ক্লিক’স)

About শুভ্র সেন

সবাইকে শুভেচ্ছা । আমি শুভ্র,একজন বাইকপ্রেমী । ছোটবেলা থেকেই মোটরসাইকেলের প্রতি আমার তীব্র আগ্রহ রয়েছে । যখন আমি আমার বাড়ির আশেপাশে কোন মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের শব্দ শুনতে পেতাম, আমি তৎক্ষণাৎ মোটরসাইকেলটি দেখার জন্য ছুটে যেতাম ।২ বছর ধরে গবেষণা ও পরিকল্পনার পর আমি এই ব্লগটি তৈরী করি । আমার লক্ষ্য হল বাইক ও বাইক চালানো সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেয়া । সবসময় নিরাপদে বাইক চালান । আপনার বাইক চালানো শুভ হোক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Sign up to our newsletter!