TVS Stryker এর মালিকানা রিভিউ – লিখেছেন: উদয়

অনেকদিন ধরেই ভাবছিলাম TVS Stryker বাইকের একটা ছোট-খাটো রিভিউ দিব। ভেবেছিলাম ৩০০০ কিলোমিটারে রিভিউটা দিব। কিন্তু TVS Stryker নিয়ে অনেকেই কনফিউশনে আছে, তাই আজ আমি আমার কিছু অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। ভুলত্রুটি হলে মাফ করবেন। TVS STRYKER 125CC এই বাইকটি আমি গত ১৯-০৬-২০১৭ তে ক্রয় করি। এখন পর্যন্ত আমার বাইকটি চলেছে ২৭৯০ কিলোমিটার। বাইকটি যেইদিন প্রথম রাইড করি কেমন একটু অন্য রকম অনুভব করলাম। তারপর শুরু হলো ব্রেক ইন পিরিয়ড। ব্রেক ইন পিরিয়ডে আমি গড়ে ৪৫ কি.মি./ঘন্টা গতি বজায় রেখে রাইড করেছি। প্রথম ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করতে একটু দেরী করে ফেলেছিলাম, ৭৫০ কিলোমিটার এ পরিবর্তন করি। তারপর ১১৫০ কিলোমিটার…

Review Overview

User Rating: 4.5 ( 2 votes)

অনেকদিন ধরেই ভাবছিলাম TVS Stryker বাইকের একটা ছোট-খাটো রিভিউ দিব। ভেবেছিলাম ৩০০০ কিলোমিটারে রিভিউটা দিব। কিন্তু TVS Stryker নিয়ে অনেকেই কনফিউশনে আছে, তাই আজ আমি আমার কিছু অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। ভুলত্রুটি হলে মাফ করবেন।

tvs-stryker-125-specification

TVS STRYKER 125CC এই বাইকটি আমি গত ১৯-০৬-২০১৭ তে ক্রয় করি। এখন পর্যন্ত আমার বাইকটি চলেছে ২৭৯০ কিলোমিটার। বাইকটি যেইদিন প্রথম রাইড করি কেমন একটু অন্য রকম অনুভব করলাম। তারপর শুরু হলো ব্রেক ইন পিরিয়ড। ব্রেক ইন পিরিয়ডে আমি গড়ে ৪৫ কি.মি./ঘন্টা গতি বজায় রেখে রাইড করেছি। প্রথম ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করতে একটু দেরী করে ফেলেছিলাম, ৭৫০ কিলোমিটার এ পরিবর্তন করি। তারপর ১১৫০ কিলোমিটার এ একবার, ১৫৫০ কিলোমিটার এ একবার এবং ২১০০ কিলোমিটার এ লাস্ট বার চেঞ্জ করি। যাই হোক আগের থেকে বাইক অনেকটা স্মুথ হয়েছে। ভাইব্রেশন প্রব্লেমটা ফেস করি যখন স্পিড ৬৫+ হয়। কিন্তু, খুব একটা ভাইব্রেট করে না।

TVS Stryker এর লেটেস্ট বিক্রয়মূল্য দেখতে এখানে ক্লিক করুন

tvs stryker bd

TVS Stryker বাইকের কন্ট্রোলিং+ ব্রেকিং এককথায় অসাধারন। স্টক টায়ারে ভাল রোড গ্রিপ পেয়েছি। মাইলেজ ব্রেক ইন পিরিয়ড এ ৪৮ কিলোমিটার / লিটার পেতাম। ব্রেক ইন পিরিয়ড এর পর ৫২+কিমি/লিটার পাচ্ছি।

এইবার আসি বাইকের মেইন পারফরমেন্স এ । আমি মনে করি অন্যান্য ১২৫ সি সি বাইকের তুলনায় এই বাইকের রেডি পিকাপ অসাধারন। প্রথম গিয়ারে  পেয়েছি ৩৩ কিলোমিটার/ঘন্টা, এবং দ্বীতিয় গিয়ারে পেয়েছি ৬০ কিলোমিটার/ঘন্টা!  স্পিড তুলতে কত সময় লেগেছে তা চেক করিনি, কিন্তু আমার ধারনা অনুযায়ি ০-৬০ কিমি/ঘন্টা উঠতে সময় লেগেছে মাত্র ৭ সেকেন্ড! টপ স্পীড পাইলিয়নসহ  পেয়েছি ১০৫ কিলোমিটার /ঘন্টা এবং সিংগেল এ পেয়েছি ১১০ কিলোমিটার/ঘন্টা,  যা সত্যিই অভাবনীয়!  বাইক রোজার ঈদ এর ভেতর একটানা ১০০ কি.মি. রাইড করছি কোনপ্রকার ব্যাকপেইন ছাড়াই। এই পর্যন্ত কয়েকটা খারাপ দিক ছাড়া বাইকটি কখনোই আমাকে নিরাশ করেনি।

tvs stryker bd price

TVS Stryker এর ভালো দিক সমুহ:

  • অসাধারন রেডি পিকাপ
  • গুড হ্যান্ডলিং + ব্রেকিং
  • গুড মাইলেজ
  • বড় ফুয়েল ট্যাংক
  • কমফোর্টেবল সিটিং পজিশন
  • ফুল ডিজিটাল মিটার

tvs stryker in bangladesh

TVS Stryker – খারাপ দিক:

  • হেডলাইট এর আলো একটু কম
  • স্টক হর্ন এর সাউন্ড অনেক কম
  • পেছনের টায়ার বেশি চিকন, আরেকটু মোটা হলে ভালো হতো
  • ওজন আরেকটু বেশি হলে ভালো হতো

আমার TVS Stryker এর সাথে এই ২৭৯০ কিলোমিটারে আমি যতটুকু অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছি, উপরে তার যতটুকু সম্ভব তুলে ধরেছি। কোন ভুল হলে ক্ষমা করবেন।

লিখেছেন: উদয় হোসেন

About আহমেদ স্বজন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: সকল লেখা সুরক্ষিত !!